English|Bangla আজ ২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার রাত ৩:১৬
শিরোনাম
পত্নীতলায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শিশু খাদ্য বিতরণসাপাহারে ভুয়া কবিরাজের চিকিৎসায় হাত হারাতে বসেছে সাত বছরের শিশু!পলাশবাড়ীতে জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিতনাগেশ্বরী কামিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হলেন মোহাম্মদ অাব্দুল অাউয়ালকুড়িগ্রামে মোবাইলে অনলাইনে গেম খেলায় ১১ শিক্ষার্থী আটক- মুচলেকায় অভিভাবকের কাছে হস্তান্তরডিসিসিআই’র আয়োজনে ” সাস্টেইনএবল রিভার ড্রেজিং: চ‍্যালেঞ্জেস এন্ড ওয়ে ফরওয়ার্ড ” শীর্ষক অনলাইন আলোচনা সভায় নৌ প্রতিমন্ত্রীখানসামায় লকডাউন বাস্তবায়নে চলছে এসিল্যান্ড এর বাজার মনিটরিং ও ভ্রাম্যমাণ অভিযানচাঁপাইনবাবগঞ্জে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যু ১, শনাক্ত ২৭বান্দরবানে টানা বর্ষণে পানিবন্দী মানুষের মাঝে খাবার পৌঁছে দিল সেনাবাহিনীচট্রগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদে নারী ছিনতাইকারী গ্রেফতার

মেয়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত ওয়াসিম

বনানী কবরস্থানে মেয়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন চিত্রনায়ক ওয়াসিম। রোববার বাদ জোহর গুলশানের আজাদ মসজিদে প্রথম জানাজা ও বনানী মসজিদে দ্বিতীয় জানাজার পর বেলা তিনটায় তাকে দাফন করা হয়। বার্ধক্যজনিত নানা শারীরিক সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে অভিনেতা ওয়াসিম রাত ১২টা ৪০ মিনিটে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।

ওয়াসিম বিয়ে করেছিলেন চিত্রনায়িকা রোজীর ছোট বোনকে। তাদের ঘর আলো করে জন্ম নেয় পুত্র দেওয়ান ফারদিন এবং কন্যা বুশরা আহমেদ। ২০০০ সালে তার স্ত্রীর অকালমৃত্যু ঘটে। স্ত্রীর মৃত্যুর পর সন্তানদের নিয়েই দিন কাটে ওয়াসিমের। কিন্তু স্ত্রীর মৃত্যুর কয়েক বছর পর মেয়ের আত্মহত্যার ঘটনায় একদম ভেঙে পড়েছিলেন সদ্যপ্রয়াত এই অভিনেতা।

জানা যায়, ওয়াসিমের মেয়ে বুশরা রাজধানীর মানারাত ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে পড়তেন। ২০০৬ সালে মাত্র ১৪ বছর বয়সে ওই স্কুলভবনের ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেন বুশরা। পরীক্ষা চলাকালীন নকলের অভিযোগ আসে তার বিরুদ্ধে। বিষয়টি পরিবারকে জানানোর সময় বাথরুমে যাওয়ার কথা বলে সেখান থেকে চলে যান বুশরা। পরে সকলের অগোচরে স্কুলভবনের পাঁচতলায় উঠে বুশরা লাফ দেন। মেয়ের শোকে কাতর হয়ে পড়েছিলেন চিত্রনায়ক ওয়াসিম।

এদিকে পুত্র ফারদিন লন্ডনের কারডিফ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলএম পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ব্যারিস্টার হিসেবে আইন পেশায় নিয়োজিত হন।

গত জানুয়ারি মাস থেকে চোখের যন্ত্রণায় ভুগতে শুরু করেন। সে সময় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ওয়াসিমকে। তাঁর অসুস্থতা ক্রমেই বাড়তে থাকে, একপর্যায়ে দৃষ্টিশক্তি প্রায় হারিয়ে ফেলেন তিনি। এ ছাড়া বেশ কিছুদিন ধরে তিনি কিডনি, ফুসফুস, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপসহ নানা সমস্যায় ভুগছিলেন। চোখের ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় সুগারসহ বেশ কিছু সমস্যা চলে যায় নিয়ন্ত্রণের বাইরে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো