English|Bangla আজ ১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার সকাল ৭:২২
শিরোনাম
চরফ্যাশনে মেয়র- সাধারন কাউন্সিলদের ভোট বিন্যাসপ্রকাশিত খবরের প্রতিবাদ জানিয়ে কাজীর সংবাদ সম্মেলনচরফ্যাশন পৌর সভায় আওয়ামীলীগের জয়বান্দরবানে অজ্ঞাত ব্যাক্তির লাশ উদ্ধারআবারও খানসামায় দ্রুতগামী মটরসাইকেল-নসিমন সংঘর্ষে যুবক নিহত।মোছাঃ মাহমুদা ইসলাম সেফালী প্রাইসমানি ফুটবল টুর্নামেন্টে ২০২১ শুভ উদ্বোধনচিলমারীতে বিএনপির সংবাদ সম্মেলনশেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে রুপান্তরিত হয়েছে ….নওগাঁয় তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদবাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বাবু ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার সৌজন্যে প্রদত্ত শীতবস্ত্র বিতরণ ও আলোচনা সভা অনুষ্টিতঘাটাইলে সংবর্ধনা ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী

ভালুকায় চলছে ভূমি জবর দখল, রহস্য জনক কারনে নিরব বনবিভাগ

ভালুকা,(ময়মনসিংহ)প্রতিনিধি:

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার কাদিগড় বন বিটের অধীন পারাগাঁও মৌজার বড়চালা নামক স্থানে বন গেজেট ভূক্ত ৯৮৮ নং দাগে অবৈধ ভাবে সিমানা প্রাচীর নিমার্ন করে বন ভূমির জমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায় হবিরবাড়ির বিক্ষ্যাত ভূমিদস্যু তার সশস্র বাহিনির উপস্থিতিতে প্রায় ৮ একর ভুমি জবর দখলের উদ্বেশে পারাগাঁও মৌজার সিএস ৯৮৭ এবং বন গেজেট ভূক্ত ৯৮৮ নং দাগে অবৈধ ভাবে সিমানা প্রাচীর নির্মান করছে। স্থানীয়রা জানান ৮ একর ভূমির মধ্যে প্রায় ৩ একর ভূমি বন গেজেট ভুক্ত।

অভিযোগ উঠেছে হবিরবাড়ির একটি প্রভাবশালী মহল স্থানীয় বন কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে এ সিমানা প্রাচীর নির্মান করছে। স্থানীয়দের অভিযোগ প্রভাবশালী মহলটি বিভিন্ন ঝামেলাপূর্ণ জমি প্রথমে সিমানা প্রাচীর নির্মান করে দখল করে পরে বিভিন্ন কোম্পানির মালিকের কাছে চড়া দামে বিক্রি করে দেয় আর হাতিয়ে নেয় কোটি কোটি টাকা।

৯৮৮ নং দাগে সিমানা প্রাচীর নির্মান প্রসঙ্গে বনখেকোদের একজন বলেন, এটা সিএস জমি এই জমিটি আমি ক্রয় করে রেখেছি। আমি আমার জমিতে সিমানা প্রাচীর নির্মান করছি এখানে কোন ঝামেলা নেই। এ ব্যাপারে কাদিগড় বিটের বিট কর্মকর্তা আশরাফুল আলম বলেন, যেখানে সিমানা প্রাচীর নির্মান করা হচ্ছে সেটা সিএস ৯৮৭ এবং বন গেজেট ভূক্ত ৯৮৮ দাগ।

আমি ৯৮৮ নং দাগে কাজ করতে নিষেধ করেছি। তারা কাজ অব্যাহত রেখেছে কিনা বিষয়টি আমি জানিনা। ভালুকা রেঞ্জ কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক মোবাইল ফোনে সাংবাদিকদের বলেন, আমি উত্তর দিতে বাধ্য নই। তথ্য অধিকার আইনে আবেদন করে তথ্য নিতে হবে।

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন বন ভূমিতে কাজ করেনা। তারা তাদের জমিতেই কাজ করছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো