English|Bangla আজ ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার সকাল ৬:৩৮
শিরোনাম
ফুজাইরাহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশ ওমেন্স এসোসিয়েশন দুবাই।ফুজাইরা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ালেন বাংলাদেশ মহিলা সমিতি দুবাই।গুলিবিদ্ধ ভোলা জেলা ছাত্রদল সভাপতি নুরে আলম এর মৃত্যু।দুবাইতে বিএমএসএফ’র ১০ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন।ভোলা চরফ্যাশন এর সন্তান শামসুর রহমান সোহেল বনাস’র উপদেষ্টা মনোনীত।দুবাইতে গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ইয়াকুব সুনিকের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়।আবুধাবি বিএনপির উদ্যোগে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী ও বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিতচরফ্যাশন যুবদল নেতা কবির কমান্ডার ছাত্রলীগের হামলায় আহতভোলার সন্তান এস রহমান সোহেল আমিরাতে বাংলাদেশ রিপোর্টার্স ইউনিটি’র সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত।আরব আমিরাতে বাংলাদেশ রিপোর্টার্স ইউনিটির কমিটি গঠন।

পটুয়াখালীতে টেলিভিশন জার্নালিস্ট ফোরামের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্টাফ রিপোর্টার।
১২ই নভেম্বরকে উপকূল দিবস হিসেবে ঘোষনার দাবীতে পটুয়াখালী টেলিভিশন জার্নালিস্ট ফোরামের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে, সহরের লঞ্চঘাটের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়,মানববন্ধনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্তিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক বির মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী আলমগীর, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্তিতি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ নেতা সবির গাজী, এসময় টেলিভিশন জার্নালিস্ট ফোরামের সভাপতি কাজী ইকবাল ও সাধারণ সম্পাদক মোজহিদ প্রিন্স সহ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ ও সংগঠনের সদস্যগন উপস্থিত ছিলেন।

পরে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বক্তারা ১২ নভেম্বরকে দিবস হিসেবে ঘোষনার দাবী জানান এবং এর কারন ব্যাক্ষ্যা করে বলেন,১৯৭০ সনের ১২ই নভেম্বর প্রলয়ঙ্কারী ঘুর্নিঝর হয়েছিল এবং স্বাধীনতার পরে বাংলাদেশের জতগুলো ঘুর্নিঝর হয়েছে এর সবগুলোই নভেম্বর মাসে হওয়ার কারনে ৭০ সনকে স্বরনে রাখার জন্যই দিবস হিসেবে ঘোষনার দাবী জানান তারা।

বক্তারা আরও বলেন শুধু দিবস ঘোষনাই নয় বরং এর জন্য আলাদা মন্ত্রনালয় গঠন করে পর্যাপ্ত বাজেট রাখার ও আহবান জানান,মূলত ১২ টি দাবীর উপরে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

দাবীগুলো ১,জনসংখ্যা অনুপাতে আশ্রয়কেন্দ্রের সংখ্যা বারাতে হবে,২.আশ্রয়কেন্দ্রের যথাযথ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে,৩.আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার বিষয়ে মানুষের সচেতনতা বাড়াতে হব,৪.আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার সড়ক ভালো থাকতে হবে,৫.সতর্ক সংকেত বিষয়ে মানুষদের আরও সচেতন করতে হবে, ৬.আবহাওয়ার সঙ্গে মিল রেখে যথাযত সংকেত দিতে হবে, ৭.উপকুলিয় এলাকায় শক্ত ও উচু বেরিবাধ নির্মাণ করতে হবে, ৮.মাঠ পর্যায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটিকে আরও আগে থেকে সক্রিয় হতে হবে,৯.উৎপত্তিস্থল থেকে ঘূর্ণিঝড় সংকেত জানানো শুরু করতে হবে, ১০.উপকুলের সকল মানুষকে রেডিও নেটওয়ার্ক এর আওতায় আনতে হবে, ১১.গণমাধ্যমকে সারাবছর উপকুলে নজরদারি রাখতে হবে,ও ১২,গণমাধ্যমে উপকুলের জন্য বিশেষ স্থান বরাদ্দ করতে হবে। এ সকল দাবীর উপর এর সুফল সম্পর্কে বক্তারা আলোচনা করেন। পরে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোজাহিদ প্রিন্স মানববন্ধনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো