English|Bangla আজ ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার রাত ৯:০০
শিরোনাম
উখিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কমরুদ্দিন মুকুলের বিবৃতিনওগাঁয় মানবাধিকার  ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণসাপাহারে বরেন্দ্র বাতিঘর পাঠাগারের শুভ উদ্বোধনগৌরীপুরে আব্দুল রউফের উপর সন্ত্রাসী হামলা৯৯৯ কলে পুলিশের সহযোগীতায় জীবন বাঁচলো সোমার।খানসামার পুরোনো ঐতিহ্যের জয়সঙ্কর জমিদার বাড়িটি এখন বিলুপ্তির দ্বারপ্রান্তেসুন্দরগঞ্জে শিশুকে অপহরণের পর হত্যা মামলার ১০ আসামী খালাসগাইবান্ধা সদর বোয়ালী ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হয়ে বৈঠা ধরতে চান যুবলীগ নেতা তুহিনচাঁপাইনবাবগঞ্জে স্কুলছাত্রীর উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় দুই চাচাকে মারধররাণীনগরে ১১ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ল্যাপটপ বিতরণ

কাপাসিয়ায় বানার নদীতে ভাসছে মুরগির পালক

গাজীপুর থেকে মনির হোসেন জীবন

কাপাসিয়া বাজারের মুরগির বর্জ্য সরাসরি ফেলা হচ্ছে বানার নদীর পানিতে। মুরগির দোকানগুলো থেকে ড্রেন দিয়ে নদীর পানির সাথে সংযোগ দেয়া হয়েছে। নিয়মিত পরিষ্কার না করার ফলে ড্রেনের মুখের খেয়াঘাট এলাকায় গড়ে উঠেছে বর্জ্যের স্তূপ। বর্জ্যের স্তূপের গন্ধে অতিষ্ঠ উপজেলাবাসী।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা গেছে, কাপাসিয়া সদর বাজারের ৮-১০টি মুরগি দোকান থেকে প্রতিদিন বানার নদীতে মুরগির বর্জ্য ফেলা হচ্ছে। এতে নদীর পানি ও পরিবেশ দূষিত হলেও বাজার কমিটি সম্পূর্ণ নির্বিকার। নদীতে স্রােত না থাকায় ময়লা জমে স্তূপে পরিণত হয়েছে। পানি কালো রং ধারণ করছে। ভাসছে মুরগীর পালক। স্রোতবিহীন নদীর পানিতে মুরগির বর্জ্য ফেলার কারণে চরম দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। পানির সংস্পর্শে মানুষের শরীরে দেখা দিচ্ছে নানা রকমের চর্মরোগ। ড্রেনের মুখ খেয়াঘাট এলাকায় হওয়ায় হাতের নাক চেপে যাতায়াত করছে পথচারীরা।

নদী সংলগ্ন তরগাঁও গ্রামের হেলেনা বেগম বলেন, নদীতে আমরা অনেক গোসল করেছি। হাঁড়ি-পাতিল ও থালা-বাসন ধুয়েছি। এখন নদীতে গোসল তো দূরের কথা দুর্গন্ধের কারণে কাছেও যাওয়া যাচ্ছে না।

খেয়াঘাটে কথা হয় পথচারী রাকিব, মাসুম ও মিথিলার সাথে। তারা সবাই কাপাসিয়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী। নাক ডেকে আর কত পথ চলা যায়? বাধ্য হয়ে এ পথ দিয়ে চলে তারা। এ খেয়াাঘাট হয়ে হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে, এখানে কেন ময়লার ড্রেন প্রশ্ন তাদের।

খেয়াঘাটের মাঝি রেয়াজ উদ্দিন বলেন, সবাই মিলে চাঁদা তুলে ময়লা পরিষ্কার করেছি। গন্ধ তীব্র হওয়ায় প্রতিদিন ২০-২৫ টি বিসিং পাউডার দিয়েছি। এখন আমি, কাজল, মজিবুর নিয়মিত ময়লা পরিস্কার করছি। এ ব্যাপারে বাজার কমিটি কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না।

কাপাসিয়া বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ আলী বদু বলেন, এ বিষয়ে আমি জানিনা। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোসা. ইসমত আরা বলেন, ড্রেনের মাধ্যমে সরাসরি নদীতে মুরগির বর্জ্য ফেলা হলে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো