English|Bangla আজ ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার রাত ৩:২৭
শিরোনাম
চরফ্যাশন পৌর নির্বাচনে শেষ মুহুর্তে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরাফুলছড়িতে ভূমি অফিস নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন-ডেপুটি স্পীকারখানসামায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য গীতা বিদ্যালয় উদ্বোধন।রাণীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপিত হেলাল সম্পাদক দুলুগোবিন্দগঞ্জ পৌরসভার মেয়র-কাউন্সিলরদের দায়িত্ব গ্রহণ ও সংবর্ধনাপলাশবাড়ীতে রাস্তায় ইটের সোলিং করণ প্রকল্পের উদ্বোধণনওগাঁয় গলা ও পায়ের রগকাটা এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করলো পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসসোনারগাঁওয়ে ঘুমের ঔষধ খাইয়ে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণপ্রেমিকাকে বাঁচাতে গিয়ে ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ গেল তরুণেরসাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে ঘাটাইল প্রেসক্লাবের মানববন্ধন।

সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গা “প্রাণিসম্পদ কল্যাণ কেন্দ্র ও কৃতিম প্রজনন পয়েন্ট” পূনরায় চালু

আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি-

গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের ডাকবাংলোর ভিতরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রাণী সম্পদ কল্যাণ কেন্দ্র ও কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্ট নামে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের বা মন্ত্রণালয়ের একটি কার্যালয় ছিল। হঠাৎ করেই গত ২০১৬ সালে জনবল সংকটের কারণে কার্যালয়টির সমস্ত কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।

উক্ত কার্যালয়ে তৎকালীন কর্মরত ছিলেন মোঃ আব্দুল ওয়াহাব, সাব এসিস্ট্যান্ট লাইভস্টক অফিসার। তারও পূর্বে উক্ত কার্যালয় দুইজন পরিপূর্ণ কর্মকর্তা কর্মরত ছিলেন তন্মধ্যে ডাক্তার আব্দুল ওহাব ভেটেরিনারি ফিল্ড এসিস্ট্যান্ট (ভি,এফ,এ) একজন ও মোঃ আব্দুল মালেক ফিল্ড এসিস্ট্যান্ট আর্টিফিসিয়াল ইনসিমেনেটর (এফ,এ,এ,আই)।

আব্দুল মালেক অবসরে গেলে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের জনবল ঘাটতি দেখা দেয়। যার ফলে বামনডাঙ্গাস্থ প্রাণী সম্পদ কল্যাণ কেন্দ্র ও কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্টটি অকার্যকর হয়ে যায়।

সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় ১৫টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার মধ্যে বামনডাঙ্গা ও সর্বানন্দ ইউনিয়নবাসী খামাররের মাধ্যমেই অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী। ১৯৯৭ সালে সর্বানন্দ ইউনিয়নের ফরিদ হাজী মৎস্য খামারে “রাস্ট্রপতি পদক” পান। ২০১৬ সালে বামনডাঙ্গা প্রাণী সম্পদ কল্যাণ কেন্দ্র ও কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্রের কার্যক্রম বন্ধ হলে খামারিগণ প্রাণী সম্পদ নিয়ে হতাশায় পড়ে যায়।

দীর্ঘ চার বছর পর খামারিদের ও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবর্গের ন্যায্যদাবীর প্রেক্ষিতে সম্মানিত জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সাত্তার মহোদয় ও উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মোঃ ফজলুল করিম মহোদয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় গতকাল ৪ মার্চ বুধবার পূনরায় কার্যক্রম শুরু হলো বামনডাঙ্গা প্রাণী সম্পদ কল্যাণ কেন্দ্র ও কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্ট।

কেন্দ্রটি চালুর নিমিত্তে জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার বিশেষ নির্দেশে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা কেন্দ্রটিতে ডাঃ আঃ ওহাব উপ-সহকারী প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা (এস,এ,এল,ও) কে প্রাণী সম্পদের সেবাদানের নির্দেশ দেন। তারই প্রেক্ষিতে চালু হলো, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের “প্রাণিসম্পদ কল্যাণ কেন্দ্র ও কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্ট” বামনডাঙ্গা কার্যালয়।

এবিষয়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ-বামনডাঙ্গা ইউনিয়ন শাখার সভাপতি মোঃ সমেষ উদ্দিন বাবু বলেন, শ্রদ্ধা জানাই-সম্মান জানাই, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা জনাব আব্দুস সামাদ মহোদয়কে, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মোঃ ফজলুল করিমক মহোদয়কে তাদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আমার এলাকার প্রাণী সম্পদ তথা খামারিগন ঘরে বসে খামারের সেবা পাচ্ছে।

গত ২৯ ফেব্রুয়ারী জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃত্ববৃন্দ, স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ ও খামারিদের নিয়ে কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্ট পরিদর্শন করেন এবং আস্বস্ত করে বলেন, স্বত্বর কার্যালয়টি চালুর ব্যবস্থা গ্রহন করছি। আজ কেন্দ্রটি পূনরায় চালু হওয়াতে খামারিগণ স্বস্তি প্রকাশ করছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো