English|Bangla আজ ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার বিকাল ৫:৪১
শিরোনাম
সাপাহারে হতে সকলের অশ্রুসিক্ত ভালোবাসা নিয়ে বিদায় নিলেন কল্যাণ চৌধুরীরংপুর জেলা আ’লীগ নেতা ওয়াজেদুল ইসলামের মাতা আর নেইফুলপুর শুভসংঘের নয়া কমিটির যাত্রা শুরু, আশরাফ সভাপতি, পান্না সাধারণ সম্পাদকনরসিংদীতে ঢিলেঢালা লকডাউনচিরিরবন্দরে নির্দেশ অমান্য করে দোকান খোলায় ১০ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানাফেসবুক গ্রুপ প্রিয় খানসামা’র উদ্যোগে গরীব পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম শুরুপহেলা বৈশাখ উপলক্ষে সাপাহারে রোগীদের মাঝে উন্নত খাবার পরিবেশনকরোনা কি পৃথিবীতে দুর্ভিক্ষের হাতছানি দিচ্ছে?ইউএনও-এসিল্যান্ডের নজরদারী- নান্দাইলে কঠোরভাবে লকডাউন পালনমুরাদনগরে খেলার মাঠকে বাঁচিয়ে রাখতে মানবিক আবেদন জানিয়ে মানববন্ধন

ময়মনসিংহে ভুল অপারেশনে প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ :

ময়মনসিংহ নগরীর ভাটিকাশর এলাকার বেসরকারী ‘রাজধানী প্রাইভেট হাসপাতাল ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে’ ভুল চিকিৎসা ও অপারেশনে সুমী আক্তার নামে এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। পরিবার ও স্বজনদের অভিযোগ, সিজার করার সময় কর্তব্যরত চিকিৎসকরা প্রসাবের নালী কেটে ফেলার কারনে সুমীর এই অকাল মৃত্যু হয়েছে।

অর্থলোভী হাসপাতাল মালিক ও চিকিৎসকদের দৃষ্টান্তমুলক বিচার দাবি করেছের সুমীর ক্ষুব্ধ পরিবার ও স্বজনসহ স্থানীয় এলাকাবাসী।

ময়মনসিংহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানী হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন। স্বাস্থ্য বিভাগের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. পরীক্ষিত কুমার পাল জানান, তারা তদন্ত করে দেখছেন। তদন্তে গাফিলতি কিংবা ভুল চিকিৎসা ও অপারেশনের প্রমাণ পেলে দায়ী হাসপাতাল মালিক ও চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন ডেপুটি সিভিল সার্জন। এদিকে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে নানা মহলে দৌড়ঝাপ করছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও চিকিৎসক।

স্থানীয় সূত্র জানায়, প্রথম সন্তান প্রসবের জন্য গত ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসে বেসরকারী রাজধানী হাসপাতালে ভর্তি হন ময়মনসিংহ সদর উপজেলার রশিদপুর গ্রামের কৃষক আবুল কালামের মেয়ে সুমী আক্তার। সিজারে পুত্র সন্তান হলে অবস্থার অবনতি ঘটে সুমীর। রাজধানী হাসপাতালে পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে মরণাপন্ন সুমীকে পাঠিয়ে দেয়া হয় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

সেখানে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটেÑ (আইসিইউ) গত ১৮ ডিসেম্বর মারা যায় সুমী। রাজধানী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, সুমীকে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর সিজার করেন ময়মনসিংহে বসবাসকারী জামালপুর মেডিক্যালের সার্জন ডা. আফসানা রওশন।

সুমীর উচ্চ রক্তচাপ ছিল বলেও দাবি করা হয়। তবে পরিবারের দাবি প্রসবের ব্যথা ছাড়া সুমীর অন্য কোন জটিলতা ছিল না। পরিবার ও স্বজনদের অভিযোগ, সিজার করার সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আফসানা রওশন সুমীর পর্সাবের নালি কেটে ফেলে। অপারেশন থিয়েটার থেকে বের করার পর প্রর্সাব না হওয়ায় পেট ফুলে যায় এবং তীব্র ব্যথায় কাতর হলে অবস্থার দ্রুত অবনতি ঘটে সুমীর। এসময় রাজধানী হাসপাতালে ব্যবস্থা না দিয়ে সুমীকে তড়িঘড়ি করে পাঠিয়ে দেয়া হয় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। এখানের আইসিইউতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে গত ১৮ ডিসেম্বর হেরে যান সুমী।

এই ঘটনা ধামাচাপা দিতে সুমীর স্বজনসহ নানা মহলে দৌড়ঝাপ করে মোটা অঙ্কের টাকা ছড়াচ্ছেন বলে গুঞ্জন উঠেছে। ঘটনার পর বুধবার রাতে হাসপাতাল ফেলে চিকিৎসক ও মালিকরা গা ঢাকা দিলেও বৃহস্পতিবার সকালে হাসপাতালে দেখা যায় মালিকদের।

হাসপাতাল পরিচালক আরিফ জানান, তাদের কোন গাফিলতি ছিল না। নামকরা সার্জন দিয়েই তারা সিজার করানো হয়। সিজারের সময় ভুল করে পর্সাবের নালি কেটে ফেলা সম্পর্কে জানান-এটি সার্জন ডা. আফসানা বলতে পারবেন। ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের গাইনী বিভাগের দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, রাজধানী হাসপাতালসহ বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিক ও হাসপাতালে ভুল চিকিৎসা ও অপারেশনের শিকার অনেক রোগীকে মরণাপন্ন অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিক্যালে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো