English|Bangla আজ ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার ভোর ৫:০৫
শিরোনাম
সচেতনতা বার্তা নিয়ে পায়ে হেঁটে ৭০ কিঃমিঃ পথ পাড়ি দিল নোবিপ্রবি শিক্ষার্থী রিয়াদ!ফরদাবাদ ইউপি নির্বাচন: আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইয়াকুব মাস্টারকুড়িগ্রামে কেমিস্টস্ সমাবেশ ও পরিচিতি সভাআত্রাইয়ে ফসলি জমিতে পুকুর খনন, খনন বন্ধে অভিযোগ: প্রশাসন নিরবগোবিন্দগঞ্জে অটোভ্যান চালক হামিদুল হত্যাকান্ডের ঘটনায় গ্রেফতার-৩পলাশবাড়ীতে মাসিক আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিতগংগাচড়ায় পিপিআর রোগ নির্মূলে বিনামুল্যে টিকা প্রদানের উদ্ধোধনআলোচিত সেই শিশু রফিকুলের দায়িত্ব নিলেন ইউপি চেয়ারম্যান হাসানঠাকুরগাঁওয়ে রুহিয়ায় দুই রাস্তার বেহাল দশাকুলিয়ারচরে প্রবীন আ. লীগ নেতা রমিজ উদ্দিন ভূইয়া আর নেই

মাদক সমাজের জন্য আর্শিবাদ নয়, অভিশাপ-ডিআইজি হারুন

বদরুল আমীন, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :

“মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার” মাদক সমাজের জন্য আর্শিবাদ নয়, অভিশাপ। মাদককে না বলুন, এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গত কাল জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ব বিদ্যালয়ে মাদক বিরোধী এক সমাবেশে ময়মনসিংহ রেজ্ঞ ডিআইজি ব্যারিষ্টার হারুন অর রশিদ বিপিএম প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

উপচার্য ড,এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি প্রফেসর মো, জালাল উদ্দিন, ট্রেজারার জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ব বিদ্যালয়, ড, মোঃ আক্কাছ উদ্দিন ভূঞা, অতিঃ ডিআইজি ময়মনসিংহ রেজ্ঞ, মোহাঃ আহমার উজ্জামান, পুলিশ সুপার, ময়মনসিংহ, স্বাগতা ভট্রাচার্য, সহকারি পুলিশ সুপার, ত্রিশাল সার্কেল, রাকিবুল ইসলাম সাধারন সম্পাদক, ছাত্রলীগ, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ব বিদ্যালয় শাখা প্রমূখ।

ময়মনসিংহ রেজ্ঞ ডিআইজি ব্যারিষ্টার হারুন অর রশিদ বিপিএম আরো বলেন, শিক্ষাঙ্গনে মাদক সেবীরা থাকলেও তারা সহপার্টীর সংস্পর্শে মাদক মূক্ত হবে। নানা ভাবে তাদের বুজিয়ে, মাদক পরিহার করে সুশিক্ষার পথে ফিরে আসবে। আর যদি তা না পার তাকে পরিহার করবে। সুশিক্ষার প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা অর্জন করবে , মাদক সেবী হবে না। আাদের দেশের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩ টি বিষয়ে জিরো ট্রলরেন্সে রয়েছেন।তা হলো মাদক ,সন্ত্রাস ও দূর্নীতি।

বিশেষ অতিথি প্রফেসর মো, জালাল উদ্দিন আমাদের দেশে মাদক সম্পুর্ন নিষিদ্ধ। মাদক সেবী পরিবারের জন্য বোঝা, সমাজের জন্য বোঝা। তাদেরকে যে কোন মূল্যে সঠিক পথে আনতে হবে। সমাজ মাদক সেবীদের কাছ থেকে কোন ভালো কিছু আশা করতে পারেনা। এরা সব সময় অপরাধের দিকে ঝুকে পড়ে।

ড, মোঃ আক্কাছ উদ্দিন ভূঞা, অতিঃ ডিআইজি ময়মনসিংহ রেজ্ঞ বলেন, একজন মাদকাসক্তকে ভালো পথে ফিরিয়ে আনতে ভাল বন্ধুরাই যতেষ্ট। সচেতনতা ও সন্তানদের সাথে ভালো আচারন করলে সন্তান কখনো কুপথে যাবেনা। তোমরা কেউ শখের বসেও মাদক স্পর্শ করবেনা। সখ এক সময় অভ্যাসে পরিনত হতে পারে।

মোহাঃ আহমার উজ্জামান, পুলিশ সুপার, ময়মনসিংহ বলেন, মাদক সেবন কোন অহংকার নয়, মাদক সেবন অপরাধ। যখন দেখি, কোন মাদক সেবীকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তখন খুব মায়া হয়। সেতো আমাদের কারো সন্তান, কারো ভাই। মাদক সেবীদের কাছে পরিবার, সমাজ নিরাপদ নয়। মাদক প্রতিরোধে ২০১৮ সনে আইন আরো কঠুর হয়েছে। আমরা চাইনা কোন শিক্ষাঙ্গনে কিংবা দেশের কোথাও মাদক থাকুক। তোমাদের সহপার্টী কেউ মাদক সেবন করলে“ তোমরা তাকে বুজিয়ে, মাদক সেবন থেকে বিরত রাখবে”।তা যদি না পার তাহলে তাকে পরিহার করবা। পারবতী যেমন দেব দাসকে করেছিলো।

স্বাগতা ভট্রাচার্য, সহকারি পুলিশ সুপার, ত্রিশাল সার্কেল বলেন,যে কোন মূল্যে মাদক সেবন পরিহার করতে হবে। মাদক সেবনকারীরা সমাজে আবর্জনা হিসেবে পরিচিত। মাদক সেবনকারীরা কখনো সমাজে প্রতিষ্ঠিত হতে পারেনা। মুজিব বর্ষে আমাদের অঙ্গীকার হউক “মাদককে না বলুন”।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো