English|Bangla আজ ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার বিকাল ৫:১৭
শিরোনাম
রাণীনগরে কৃষকের মাঝে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন বিতরণনান্দাইলে বিধবার বাড়িতে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে ইউএনও এরশাদ উদ্দিননান্দাইলে ৩ শতাধিক পরিবারের মাঝে আফতাব উদ্দিন ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের উদ্যোগে ফুড প্যাক বিতরণরাণীনগরে অভ্যন্তরিন গম সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধনঅন্তসত্তা স্ত্রী’র কাছে যাওয়া হলো না ইমাম মাসুম বিল্লাহ’রবসুরহাটে মির্জা অনুসারীদের গুলিতে উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক গুলিবিদ্ধরাণীনগরে পুকুরে ভাসমান ড্রামের মধ্য থেকে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধারগোবিন্দগঞ্জে অরক্ষিত পানির ট্যাঙ্কে পড়ে আপন দুই ভাইয়ের মৃত্যুপটিয়ার ভাটিখাইনে খালেদা জিয়াসহ নেতৃবৃন্দ রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিতনান্দাইলে আফতাব উদ্দিন ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট রোজাদারদের ঘরে পৌঁছে দিচ্ছে রমাদান ফুড প্যাক

ভালুকার শিল্প ইন্ডাস্ট্রিতে স্থানীয় বেকারদের চাকরি না দেওয়ার অভিযোগ

সারুয়ার হাসান,ভালুকা প্রতিনিধিঃ

ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলার বিভিন্ন শিল্প কারখানায় স্থানীয়দের চাকরি না দেওয়ার অভিযোগে আন্দোলন করছে স্থানীয়রা। গত কয়েকদিন যাবৎ ভালুকায় টপ অব দ্য টাউন “ভালুকা বেকারমুক্ত যুব আন্দোলন”। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে আন্দোলনটি। সমাজকর্মী ও রাজনৈতিক নেতারাও এ আন্দোলনে একত্ত্বতা প্রকাশ করে যার যার ফেসবুকে বিভিন্ন দাবি তুলে ধরছেন।

ভালুকা বেকারমুক্ত যুব আন্দোলনের নেতারা জানান, ভালুকা উপজেলা জুড়ে গড়ে উঠেছে শত শত শিল্পকারখানা। দেশের বিভিন্ন জেলা বা উপজেলা থেকে লক্ষ লক্ষ লোক এসে ভালুকার শিল্প কারখানায় কাজ করে অথচ ভালুকার স্থানীয় বেকার চাকরি নামক সোনার হরিনের আশায় মাসের পর মাস ফ্যাক্টরির সামনে দারিয়ে থেকে নষ্ট করছে মূল্যবান সময়। এদের নেই কোন কর্মসংস্থান।

নিজ এলাকার শিল্প কারখানা ও ইন্ডাস্ট্রিতে চাকরি পায়না তারা, তাদের অপরাদ তারা স্থানীয়। এবং ভালুকা উপজেলার বিভিন্ন কারখানায় কিছু সংখ্যক লোক নিয়োগ দিলেও তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুযায়ী কাজ পায় না।শ্রমিক পদে চাকরি করতে হচ্ছে।

স্থানীয়দের দাবী তাদের ছেলে মেয়েদের চাকুরীতে অগ্রাধিকার দিতে হবে। ৪০% কর্মকর্তা-কর্মচারী স্থানীয় হতে হবে। তা না হলে ফ্যাক্টরী বন্ধের দাবী জানিয়েছে এলাকাবাসী।

ভালুকা বেকারমুক্ত যুব আন্দোলনের নেতা আসাদুজ্জামান সুমন জানান, এটা আমাদের অধিকার, আমাদের এলাকায় শিল্প কারখানার গড়ে উঠলেও ওইসব মিল কারখানাতে স্থানীয় কাওকেই চাকুরী দেওয়া হয়না। এসব কারখার জন্য আমাদের পরিবেশের বেশ ক্ষতি হচ্ছে। আমাদের নদী, খাল-বিল সব কিছু নষ্ট হয়ে গেছে। তাহলে আমাদের যুবকরা কেন বেকার থাকবে?। আমরা প্রয়োজনে অঙ্গীকারনামা দিবো। তারপরও আমরা যোগ্যতা অনুযায়ী চাকুরী চাই।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো