English|Bangla আজ ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার সকাল ১১:৪৯
শিরোনাম
সচেতনতা বার্তা নিয়ে পায়ে হেঁটে ৭০ কিঃমিঃ পথ পাড়ি দিল নোবিপ্রবি শিক্ষার্থী রিয়াদ!ফরদাবাদ ইউপি নির্বাচন: আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইয়াকুব মাস্টারকুড়িগ্রামে কেমিস্টস্ সমাবেশ ও পরিচিতি সভাআত্রাইয়ে ফসলি জমিতে পুকুর খনন, খনন বন্ধে অভিযোগ: প্রশাসন নিরবগোবিন্দগঞ্জে অটোভ্যান চালক হামিদুল হত্যাকান্ডের ঘটনায় গ্রেফতার-৩পলাশবাড়ীতে মাসিক আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিতগংগাচড়ায় পিপিআর রোগ নির্মূলে বিনামুল্যে টিকা প্রদানের উদ্ধোধনআলোচিত সেই শিশু রফিকুলের দায়িত্ব নিলেন ইউপি চেয়ারম্যান হাসানঠাকুরগাঁওয়ে রুহিয়ায় দুই রাস্তার বেহাল দশাকুলিয়ারচরে প্রবীন আ. লীগ নেতা রমিজ উদ্দিন ভূইয়া আর নেই

ডোমারে মাদ্রাসা ভেঙ্গে নিয়ে গেছে দুর্বত্তরা

মোঃ মোশফিকুর ইসলাম (চিলাহাটি -নীলফামারী) প্রতিনিধি:

নীলফামারীর ডোমারে একটি ইবতেদায়ী মাদ্রাসা ভেঙ্গে নিয়ে গেছে দুর্বত্তরা। দুর্বত্তরা এ সময় মাদ্রাসার টিনের বেড়া,চেয়ার,টেবিল,ব্রেঞ্চ,দরজা, ছাত্র/ছাত্রীর হাজিরা খাতা,শিক্ষক হাজিরা বহির রেজিষ্টারসহ গুরুত্বপুর্ন কাগজপত্র চুরি করে নিয়ে যায়। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পাঙ্গা মটুকপুর ইউনিয়নের মৌজাপাঙ্গা পন্ডিতপাড়া স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসায়। এ ব্যাপারে ডোমার থানায় অভিযোগ করেছেন মাদ্রাসাটির সভাপতি মোঃ দুলাল হোসেন।

অভিযোগে জানাযায়,১৯৬৮ সালে মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন মরহুম মৌলভী ছফির উদ্দিন।তিনিই প্রতিষ্ঠাকালিন প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার মৃত্যুর পরে বর্তমানে প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন মোঃ ফজলুল হক। মাদ্রাসাটি মুঞ্জুরী হয় ১৯৮৫ সালে। গত ১১ জানুয়ারী সকালে মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকার মোঃ নুরুল হকের ছেলে মাওলানা মোঃ রুহুল আমিন(৩৫),লেলিন ইসলাম(২৫),মোঃ শাহীন ইসলাম(৩৫),অহেদ মোল্লা(৪০),ফজিলা বেগম(৪০)সহ অজ্ঞাত ১০/১৫ জনের একটি দল মাদ্রাসায় প্রবেশ করে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় বাধা প্রদান এবং মাদ্রাসার সভাপতিসহ শিক্ষকদের গালিগালাজ করে রুহুল আমিন নিজেকে প্রধান শিক্ষক দাবী করেন।

এ সময় শিক্ষকরা লেখাপড়ায় বাধা দেওয়ার কারন জানতে চাইলে রুহুল আমিনের লোকজন মাদ্রাসার সভাপতি মোঃ দুলাল হোসেনকে মারধর করে। এ সময় তারা দলবেধে সকলকে হুমকি দিয়ে মাদ্রাসার সকল টিনের বেড়া,চেয়ার টেবিল,বেঞ্চ,প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ জোর করে নিয়ে যায়। বর্তমানে মাদ্রাসাটিতে শুধুমাত্র টিনের চাল রয়েছে। মাদ্রাসাটির সকল জিনিসপত্র রুহুল আমিনগং নিয়ে যাওয়ায় বর্তমানে লেখাপড়ার পাঠদান বন্ধ রয়েছে বলে জানান সভাপতি মোঃ দুলাল হোসেন।

মাদ্রাসার সভাপতি মোঃ দুলাল জানান,২০১৭ সালের ২০ জুলাই মাদ্রাসাটির মুঞ্জুরীর কাগজসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র হারিয়ে যায়। এ ব্যাপারে ডোমার থানায় ৬ সেপ্টম্বর ২০১৭ সালে সাধারন ডায়েরী করা হয় যার নম্বর-২০৪। কিন্তু রুহুল আমিন সেই কাগজপত্র পেয়ে নিজেকে প্রধান শিক্ষক তার বাবাকে সভাপতি ও স্ত্রীকে দাতা সদস্য দেখিয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসে ভুয়া কাগজপত্র দাখিল করে।

স্থানীয়রা বিষয়টি বুঝতে পেরে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সাকেরিনা বেগমকে বিষয়টি অবগত করলে তিনি রুহুল আমিনের কাগজপত্র ফিরিয়ে দিলে রুহুর আমিন আমার ও মাদ্রাসাটি উপর ক্ষিপ্ত হয়ে লেখাপড়ায় বাধা প্রদানের পাশাপাশি মাদ্রাসাটি সম্পুর্নরুমে চুরি করে নিয়ে গেছে। ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোস্তাফিজার রহমান অভিযোগের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন,বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো