English|Bangla আজ ১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার রাত ৩:০৩
শিরোনাম
চরফ্যাশনে মেয়র- সাধারন কাউন্সিলদের ভোট বিন্যাসপ্রকাশিত খবরের প্রতিবাদ জানিয়ে কাজীর সংবাদ সম্মেলনচরফ্যাশন পৌর সভায় আওয়ামীলীগের জয়বান্দরবানে অজ্ঞাত ব্যাক্তির লাশ উদ্ধারআবারও খানসামায় দ্রুতগামী মটরসাইকেল-নসিমন সংঘর্ষে যুবক নিহত।মোছাঃ মাহমুদা ইসলাম সেফালী প্রাইসমানি ফুটবল টুর্নামেন্টে ২০২১ শুভ উদ্বোধনচিলমারীতে বিএনপির সংবাদ সম্মেলনশেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে রুপান্তরিত হয়েছে ….নওগাঁয় তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদবাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বাবু ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার সৌজন্যে প্রদত্ত শীতবস্ত্র বিতরণ ও আলোচনা সভা অনুষ্টিতঘাটাইলে সংবর্ধনা ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী

ঠাকুরগাঁওয়ে ইমাম হোসেন হিরাকে হত্যার দায়ে দুই ভাইয়ের যাবজ্জীবন

মাহাবুব আলম ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি ।

ঠাকুরগাঁও ইমাম হোসেন হিরাকে হত্যার দায়ে দুই ভাইয়ের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা দিয়েছে আদালত অনাদায়ে তাদের আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।
রবিবার (৮ মার্চ) দুপুরে ঠাকুরগাঁও অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ কোর্টে বিএম তারিকুল ইসলাম জনাকীর্ণ আদালতে এ আদেশ দেন।

যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এই দুই ভাই জাকির হোসেন ও খালেক দক্ষিণ সালন্দর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। এছাড়া অপর আসামি খতেজা বেগমকে বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত ।

রাষ্ট্রপক্ষের বিজ্ঞ এপিপি অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১০ অক্টোবর সন্ধ্যায় শহরের শান্তিনগর মহল্লার নুরুল ইসলামের ছেলে ইমাম হোসেন হিরা তার ২ বন্ধুসহ আলাপ করছিলেন।

ওইসময় পার্শ্ববর্তী দক্ষিণ সালন্দর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে জাকির হোসেন ও তার ছোটভাই খালেক হিরার ওপর হামলা চালান। এক পর্যায়ে তারা কাপড় কাটার কাচি দিয়ে হিরার পেটে ও বুকে কুপিয়ে পালিয়ে যান তারা ।

এ সময় গুরুতর আহত অবস্থায় হিরাকে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে নেওয়া আসা হয় অবস্থার অবনতি হলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে রাস্তায় হিরার মৃত্যু হয়।
এ ঘটনায় নিহতের ভাই শাহজাহান আলী বাদী হয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় হিরা হত্যা মামলা করেন একটি ।

ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে মামলার আসামিদের গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেন।
অপরদিকে আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোস্তাক আলম টুলু জানান, আদালত সাক্ষী প্রমাণের ভিত্তিতে যেভাবে আইন সঙ্গত মনে করেছে সেভাবে রায় প্রদান করেছেন। সে বিষয়ে আমাদের বলার কিছু নেই। তবে আমারা উচ্চ আদালতে আপিল করার সুযোগ আছে আমরা সেখানে আপিল করবো।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো