English|Bangla আজ ২৬শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার বিকাল ৪:০৯
শিরোনাম
তার্ত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মানুষদের মাঝে শীতবস্ত্র পৌছে দিলেন নওগাঁর প্রকৌশলীরাকুড়িগ্রাম জেলা পুলিশের শ্রেষ্ঠ এএসআই উলিপুর থানার সোহাগ পারভেজবাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির বিশেষ টিমের সদস্য, রুহুল আমিন।ভূঞাপুরে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন, ১০ কাউন্সিলর প্রার্থীকে জরিমানাগোবিন্দগঞ্জ দুই বালুদস্যূ আটককুড়িগ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে মাছ ও গাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা?গোবিন্দগঞ্জে অটোভ্যান চালকের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধাররাণীনগরে সড়ক দূর্ঘটনায় সাইকেল আরোহী নিহতগোবিন্দগঞ্জে অবৈধভাবে নদী থেকে বালু উত্তোলনমাদারীপুর জেলার গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জদের সাথে আলোচনা সভা

টঙ্গীতে তুরাগ তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান।

গাজীপুর থেকে মনির হোসেন জীবন।

টঙ্গীতে তুরাগ তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদকালে দণ্ডিত ১০
টঙ্গী বাজার এলাকায় তুরাগ নদীর তীর ঘেঁষে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ। বুধবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত দ্বিতীয় দিনের মত চলে এ অভিযান। তুরাগ তীরের জমি অবৈধ ভাবে দখল করে গড়ে ওঠা টিনশেড ঘর, আধাপাঁকা স্থাপনা ও বহুতল ভবনসহ প্রায় অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এ সময় ১০ জনকে অর্থ জরিমানা করা হয়।

তারা হলেন: রাশেদ (৫৩), আফজাল হোসেন (৪৫), আলম হোসেন (২৮), আ. রহিম (৩৮), শাকিল হোসেন (২৮), সোহাগ মিয়া (১৯), মো. রেজাউল (৩৫), নাইম (৪৫), রাজেন (৫৫) ও বশির মিয়া (২৬)। এ উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ও নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট মো. হাবিবুর রহমান হাকিম। এ অভিযানটি সপ্তাহব্যাপী চলমান থাকবে। টঙ্গী বাজার এলাকার স্থাপনা উচ্ছেদ শেষে বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় অবৈধভাবে নির্মিত সকল স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে।

এর আগে গত মঙ্গলবার তুরাগ তীরের উচ্ছেদ করা বিভিন্ন স্থাপনা নিলামে ৪৮ লাখ ৭০ হাজার টাকা বিক্রয় করে দেয় বিআইডব্লিউটি। এছাড়া একই দিন ৭৫ হাজার টাকা নগদ জরিমানা আদায় ও ৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এসময় অবমুক্ত করা তুরাগের সাড়ে তিন একর ভূমি উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার হওয়াদের মধ্যে একজনকে ২ বছর, ২ জনকে ৬ মাস, একজনকে ৪ মাস ও অপর একজনকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে মোবাইল কোর্ট।

এবিষয়ে বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট মো. হাবিবুর রহমান হাকিম বলেন, কোনো আইন ও নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করেই তুরাগ নদীর তীরে গড়ে ওঠেছে শত শত বসতবাড়ি, ব্যবসা ও শিল্প প্রতিষ্ঠান। দ্বিতীয় দিনে বুধবার টঙ্গী বাজার ব্রীজ পর্যন্ত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। যদি পরবর্তীতে একইভাবে তুরাগের দুইপাশে দখলের অভিযোগ আসে, তাহলে পুনরায় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনার সাথে দখলকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্মরণীয়, গত কয়েক বছর ধরে বারবার তুরাগ নদীর পাড়ে অবৈধভাবে গড়ে উঠা বিভিন্ন স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। সেগুলো পুনরায় দখলে নিয়ে যায় একশ্রেণির প্রভাবশালীরা।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো