English|Bangla আজ ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার রাত ১২:১৪
শিরোনাম

“জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষের জন্য শ্রেষ্ঠতর চরিত্রের অতুলনীয় আদর্শ স্থাপন করেছেন প্রিয় নবী (সাঃ)।”

মহিউদ্দিন চৌধুরী,বিশেষ প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রাম ১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনের সংসদ সদস্য, আন্তর্জাতিক ইসলামিক স্কলার প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী বলেন, জাতি-ধর্ম-বর্ণ-দল-মতনির্বিশেষে সব মানুষের সঙ্গে সদাচরণ করে পৃথিবীর বুকে শ্রেষ্ঠতর স্বভাব-চরিত্রের অতুলনীয় আদর্শ স্থাপন করেছেন প্রিয় হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)। তাঁর স্বভাব-চরিত্রের মধ্যে বিনয় ও নম্রতা ছিল সদা জাগ্রত। মন্দের প্রতিবাদ তিনি মন্দ দিয়ে করতেন না, বরং মন্দের বিনিময়ে তিনি উত্তম আচরণ করতেন। সব বিষয়েই তিনি ক্ষমাকে প্রাধান্য দিতেন। ড. আবু রেজা নদভী আরো বলেন, ইসলাম শান্তি, সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যরে ধর্ম। জোর জবর দস্তী, নৃশংসতা ও নিরপরাধ মানুষ হত্যা শান্তির ধর্ম ইসলাম কখনো স্বীকৃতি দেয়না। তিনি পরিপূর্ণ জীবন ব্যবস্থা হিসাবে ইসলামকে নবী করিম (স.) অনুসৃত পন্থায় উপস্থাপনের জন্য আহ্বান জানান। তিনি ১৫ নভেম্বর রবিবার বাদ মাগরিব আশেকে রাসুল (সাঃ) চুনতির হযরত শাহ মাওলানা হাফেজ আহমদ (র.) প্রকাশ শাহ্ সাহেব কর্তৃক প্রবর্তিত ১৯ দিনব্যাপী সীরাতুন্নবী (স.) মাহফিলে ১৮ তম দিবসে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।
মাহফিলে প্রধান বক্তা ছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন বক্তা আল্লামা হাফিজুর রহমান কুয়াকাটা। প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি বলেন, মৃত্যুর পরের জীবন হচ্ছে অনন্ত কালের জন্য আর একটি নতুন জীবনের সূচনা । মৃত্যুর পর আর কোনও সুযোগ থাকেনা আমল করার। পরকালীন জীবন-ই হচ্ছে আসল জীবন। তিনি বলেন, মানুষ এই ধরণীতে ঘর সাজালেও আসল ঘরতো কবর। কবরের ঘর বানানোর জন্য আসল সম্পদ হচ্ছে বান্দার আমল তথা কুরআন শরীফ। তিনি বলেন, পরকালীন মুক্তির একমাত্র অবলম্বন আল্লাহর বাণী গ্রহণ ও অনুসরণ করা থেকে বিরত থাকার কারনেই বিশ্বব্যাপী মুসলমানরা অধঃপতিত, নিপীড়িত ও নির্যাতিত। সুতরাং মুসলমানদের অনুসরণ করতে হবে আল্লাহর বিধান ও রাসূলের নির্দেশনা। কুরআন-হাদিসের মর্মবাণীকে অনুধাবন করে অনুসরণ-অনুকরণ করতে পারেলেই পরিণত হবে যথার্থ মানুষে, সফল মানুষে, আলোকিত মানুষে।
মাহফিলে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. আহসান সাইয়েদ, চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি মিয়া মোহাম্মদ ইসমাঈল মানিক, মাওলানা শাহ আবুল কালাম আজাদ, পটিয়া মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা হোবাইবসহ বিভিন্ন স্তরের আলেম-ওলামা ও জেলা, উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা ফারুক হোছাইন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো