English|Bangla আজ ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার রাত ১০:২৩
শিরোনাম
মুক্তাগাছা প্রেসক্লাব কর্তৃক আয়োজিত শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানশেখ হাসিনার সাহসী ও বলিষ্ঠ মানবিক নেতৃত্বে গড়ে উঠবে সমৃদ্ধ এক বাংলাদেশ —ওবায়দুল কাদেরগাজীপুরে যুবলীগের উদ্যোগে,৫শত অসহায় মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র কম্বল ও মাস্ক বিতরণ করেরংপুরে অসহায়দের মাঝে কম্বল বিতরণ অব্যাহত আ.লীগ নেতা মওলারনান্দাইলে ক্যারাভান রোড শো উদ্বোধনকলারোয়া থানা পুলিশের অভিযানে ৩৯ বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আটকপলাশবাড়ীতে বাঁধন ফাউন্ডেশন আয়োজিত চাইনিজ ফুটবল টূর্ণামেন্টের উদ্বোধনমামলা চলমান অবস্হায় জেনারেল হাসপাতালের নামে জমি দখলের পায়তারাভোলায় প্রতারক ও ভূমিদস্যু আবুল কালামের বিচারের দাবিকোভিড-১৯ মোকাবেলার লক্ষ্যে পাথরঘাটায় সিসিডিবি’র খাদ্য সামগ্রী, স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও কৃষি উপকরন বিতরণ।

ছাতকে সড়ক সম্প্রসারন কাজে ব্যাপক অনিয়ম, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও যানযট নিরসনে ব্যবসায়ী নেতাদের সংবাদ সম্মেলন।

মো: আক্তার হোসেন সিলেট বিভাগীয় প্রধান :

ছাতকের গোবিন্দগঞ্জ চত্বর এলাকায় সড়ক সম্প্রসারন কাজে ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্নীতির প্রতিবাদে এবং যানজট নিরসনসহ সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দাবিতে গোবিন্দগঞ্জ কেন্দ্রীয় ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সংবাদ সম্মেলন করেন।

সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের ছাতক উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ চত্বর এলাকায় যানজট নিরসন, রেলক্রসিং সংলগ্ন ঝরা-ঝীর্ণ পরিত্যাক্ত ভবনসহ চত্বর এলাকার সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও সম্প্রসারন কাজ গতিশীল করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত হয়েছে। আজ রোবাবার সকাল ১১ টায় গোবিন্দগঞ্জ কেন্দ্রীয় ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির আয়োজনে গোবিন্দগঞ্জস্থ আশরাফুর রহমান চৌধুরী কনফারেন্স হল রুমে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন গোবিন্দগঞ্জ কেন্দ্রীয় ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সভাপতি আশরাফুর রহমান চৌধুরী, লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাধারন সম্পাদক কাজী মাওলানা আব্দুস সামাদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সহ-সাধারন সম্পাদক আলী হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাশেম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শেবুল আহমদ সাদিক, প্রচার সম্পাদক ইব্রাহিম আলী, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাফিজ আশিক উদ্দিন প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে কাজী মাওলানা আব্দুস সামাদ বলেন, সিলেট-সুনামগঞ্জ-ছাতক সড়কের গোবিন্দগঞ্জ একটি বানিজ্যিক এলাকা। এখানে রয়েছে স্কুল, মাদরাসা, কলেজ, এনজিও, ব্যাংক, বীমা ও বিভিন্ন ক্ষুদ্র শিল্প কারখানা। গোবিন্দগঞ্জ রেলক্রসিং চৌমুহনী এলাকায় জবরদখল জনিত কারনে যানজট চরম আকার ধারন করেছে। সড়কের দুপাশের খালে নির্মীত অবৈধ স্থাপনা থেকে কতিপয় হোটেল ব্যবসায়ীরা ছাঁই ফেলে ভরাট করা হয়েছে। যে কারনে সামান্য বৃষ্টিতেই সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় জনদুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন স্কুল, কলেজ, মাদরাসার শিক্ষার্থীসহ ব্যাবসায়ী, পথচারী ও সাধারন মানুষজন। অন্যদিকে চত্বর এলাকায় পুরাতন ড্রেইন না ভেঙ্গে ওই ড্রেইনের উপর চলছে সড়ক সম্প্রসারন কাজ। এতে যেকোন সময় সড়ক ধেবে যাওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। এছাড়াও নতুন ড্রেইন নির্মাণ কাজ অত্যন্ত নিম্নমানের করা হচ্ছে। রেলক্রসিং সংলগ্ন ঝরা-ঝীর্ণ পরিত্যাক্ত ভবন উচ্ছেদ না করে ডিজাইনের বাইরে প্রস্থ কম দিয়ে সড়ক সম্প্রসারন কাজ চলমান রয়েছে। লিখিত বক্তব্যে আরো উল্লেখ করা হয়, সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের গোবিন্দগঞ্জ চত্বর এলাকায় যানজট এর মুল কারন সড়কের পশ্চিম পাশে সড়ক বিভাগের নামীয় শ্রেনী খালের উপর ঘর নির্মাণ করে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হয়েছে। এছাড়াও চত্বর এলাকা দখল করে নিয়েছে হকাররা। যার ফলে আন্তঃজেলা মহাসড়ক চলমান চৌরাস্তায় যানজট লেগেই আছে। কতিপয় ভূমি খেকো চক্র ভূয়া কাগজে আদেশ তৈরি করে প্রতারনা করছে। সড়কের গোবিন্দগঞ্জ এলাকায় যানজটে কর্মঘন্টা বিনষ্ট হচ্ছে। যানজটের কারনে এলাকায় তীব্র উত্তেজনা ও জনমনে মারাত্বক নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। সরকার এর ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড ব্যাহত হচ্ছে। মহাসড়কের পাশে ১০ মিটার স্থাপনা থাকবেনা মর্মে উচ্চ আদালত কতৃক বাধ্যকর আদেশ থাকা সত্বেও তা কার্যকর হচ্ছেনা।
সরকার ও জনস্বার্থে সড়ক সম্প্রসারন কাজ গতিশীল এবং যানজট নিরসনে রেলক্রসিং এর পাশে ঝরা-ঝীর্ণ পরিত্যাক্ত ভবনসহ গোবিন্দগঞ্জ চত্বর এলাকার সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, ডিজাইন অনুযায়ী সড়ক সম্প্রসারন কাজ, জলাবদ্ধতা সমাস্যার সমাধানে পরিকল্পিত ড্রেইন ব্যবস্থা, হকারদের জন্য নিদ্রিষ্ট জায়গা চিহ্নিত, সাদা পুলের সম্মুখ হতে ব্রিজ একাডেমি পর্যন্ত সড়ক ও জনপদ বিভাগের জায়গার সীমানা নির্ধারন করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মাননীয় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের’র সু-দৃষ্টি কামনা করা হয়।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো