English|Bangla আজ ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার সকাল ১১:৫৭
শিরোনাম
সচেতনতা বার্তা নিয়ে পায়ে হেঁটে ৭০ কিঃমিঃ পথ পাড়ি দিল নোবিপ্রবি শিক্ষার্থী রিয়াদ!ফরদাবাদ ইউপি নির্বাচন: আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইয়াকুব মাস্টারকুড়িগ্রামে কেমিস্টস্ সমাবেশ ও পরিচিতি সভাআত্রাইয়ে ফসলি জমিতে পুকুর খনন, খনন বন্ধে অভিযোগ: প্রশাসন নিরবগোবিন্দগঞ্জে অটোভ্যান চালক হামিদুল হত্যাকান্ডের ঘটনায় গ্রেফতার-৩পলাশবাড়ীতে মাসিক আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিতগংগাচড়ায় পিপিআর রোগ নির্মূলে বিনামুল্যে টিকা প্রদানের উদ্ধোধনআলোচিত সেই শিশু রফিকুলের দায়িত্ব নিলেন ইউপি চেয়ারম্যান হাসানঠাকুরগাঁওয়ে রুহিয়ায় দুই রাস্তার বেহাল দশাকুলিয়ারচরে প্রবীন আ. লীগ নেতা রমিজ উদ্দিন ভূইয়া আর নেই

চট্টগ্রাম ৮ আসনের উপ নির্বাচন : পরস্পর বিরোধী অভিযোগে ভোটাররা শংকায়

মোহাম্মদ আলী রাশেদ, চট্টগ্রাম :

ঘনিয়ে আসছে চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপ-নির্বাচন। বৃষ্টি ও শীত উপেক্ষা করে প্রচার প্রচারণায় মেতে আছেন প্রার্থীরা। এ নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র অভিযোগ- পাল্টা অভিযোগে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে বোয়ালখালী। এতে সংঘাত-সংঘর্ষের আশংকা করছেন সাধারণ ভোটাররা। তবে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সুষ্ঠুৃ রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসন।

গত ৭ নভেম্বর এ আসনের সাংসদ মঈন উদ্দীন খান বাদলের মৃত্যুতে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৩ জানুয়ারী। এতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোছলেম উদ্দীন আহমদ (নৌকা), বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আবু সুফিয়ান (ধানের শীষ), বিএনএফ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ (টেলিভিশন), ইসলামিক ফ্রণ্ট বাংলাদেশের সৈয়দ মোহাম্মদ ফরিদ আহমদ (চেয়ার), ন্যাপের বাপন দাশগুপ্ত (কুঁড়েঘর) এবং স্বতন্ত্রপ্রার্থী মোহাম্মদ এমদাদুল হক (আপেল প্রতীক)।

দীর্ঘদিন পর এ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোছলেম উদ্দীন আহমদকে পেয়ে উজ্জীবিত হয়ে উঠেছেন দলীয় নেতাকর্মীরা। প্রচার প্রচারণায় মেতে আছেন তারা। বিএনপি কর্মীরাও দলীয় প্রার্থী আবু সুফিয়ানকে বিজয়ী করতে গণসংযোগ করছেন দিবারাত্র। এছাড়া অন্যান্য প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় এলাকায় সাড়া না জাগালেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র অভিযোগ পাল্টা অভিযোগে আতংকিত হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী। ফলে প্রার্থীদের দেয়া নানা প্রতিশ্রুতি ভোটারদের প্রভাবিত করছে না। সর্বত্র আলোচনা চলছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার।

শুরু থেকে বিএনপি প্রার্থী আবু সুফিয়ান শাসক দলের বিরুদ্ধে নিবার্চনী প্রচার-প্রচারণায় বাধা প্রদান, পোস্টার-ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা, গাড়ি ভাংচুর ও হামলার অভিযোগ এনেছেন। এছাড়া সরকার দলীয় সাংসদ, মেয়র ও এক উপমন্ত্রীর বিরুদ্ধেও এ নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ আনেন তিনি।

একই সাথে বিএনপির বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ করছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোছলেম উদ্দীন আহমদ। তিনি বলেন, নৌকার পক্ষে সাধারণ মানুষের জনজোয়ার দেখে বিএনপি’র নেতাকর্মীরা অপপ্রচার চালিয়ে ভোটারদের বিভ্রান্ত করছেন। তারা গুজব ছড়িয়ে আতংক সৃষ্টি করে সুন্দর নির্বাচনী পরিবেশ বানচালের চেষ্ঠা করছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো.মোকারম বলেন, একের পর এক গুজব ছড়িয়ে ভোটের সুষ্টু পরিবেশকে বিনষ্ট করতে উঠে পড়ে লেগেছে বিএনপি। ৩ জানুয়ারী শুক্রবার সকালে বোয়ালখালীতে বহিরাগত লোকজন এনে গণসংযোগ করেন বিএনপি প্রার্থী। এ সময় একটি এলাকায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে গুজব ছড়ায়। ওইদিন রাতের আধাঁরে পৌরসভার কয়েকটি স্থানে নৌকার নির্বাচনী কার্যালয়ে থাকা পোস্টার-ব্যানার ও নৌকার আদলে তৈরী প্রতীকে আগুন দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

পৌরসভা বিএনপি’র সভাপতি ও পৌর মেয়র হাজি আবুল কালাম আবু বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে আসন্ন নির্বাচন নিয়ে শংকায় রয়েছে সাধারণ মানুষ। প্রচারণায় বাধা, পোষ্টার-ব্যানার ছিঁড়ে ফেলাসহ হামলা করছে আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীরা।

বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আবু সুফিয়ান বলেন, ধানের শীষের গণজোয়ার দেখে দিশেহারা হয়ে পড়েছে আওয়ামী লীগ। তাই ভয় ভীতি প্রদর্শন করে এ গণজোয়ার রুখে দেওয়া যাবে না। সুষ্ঠু নির্বাচন যদি হয় বিপুল ভোটে বিজয়ী হবো এবং এলাকাবাসীর আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটাবো।

শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ও শীতে বোয়ালখালী উপজেলার জন জীবনে নেমে এসেছে স্থবিরতা। সমান তালে আওয়ামী লীগ বিএনপি’র অভিযোগ ও পাল্টা অভিযোগে ভোটের উৎসব আমেজ ঝিমিয়ে হয়ে পড়েছে। থমথমে পরিস্থিতিতে উদ্বেগ উৎকষ্ঠায় রয়েছে এলাকাবাসী। সাধারণ ভোটাররা জানায়, সংঘাত-সংঘর্ষ চায় না। ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ যেন বজায় থাকে সে ব্যবস্থা প্রশাসনকে করতে হবে। নির্বাচনে মুখ্য হলেন ভোটাররা।

বোয়ালখালী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ হেলাল উদ্দিন ফারুকী জানান, নির্বাচনে অংশ নেয়া প্রার্থীরা নিজ নিজ সমর্থনে জমজমাট প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা এখনো পর্যন্ত ঘটেনি, সর্তক রয়েছে পুলিশ। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুন বলেন এখনো পর্যন্ত সুনিদিষ্ট কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রয়েছে। আতংকিত হওয়ার কোন কারণ নেই। কেউ যদি বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্ঠা করে তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো