English|Bangla আজ ২৪শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার সকাল ৬:১৭
শিরোনাম
আব্দুল্লাহপুর ইউপি নির্বাচনে আবারো আওয়ামীলীগ মনোনায়ন প্রত্যাশী আল এমরান প্রিন্স।রাণীনগরে সদর ইউপি চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী জনির মটরসাইকেল শোডাউনগোবিন্দগঞ্জে ডায়াবেটিক হাসপাতালের শুভ উদ্বোধনরাজারহাটে মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন ৭০টি ভূমিহীন পরিবারসুন্দরগঞ্জে সিএনজি ও ভটভটি মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১পলাশবাড়ীতে ঘরের দলিল ও চাবি পেলেন ৬০টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবাররাণীনগরে ৯০ টি পরিবার পেল স্বপ্নের ঠিকানারাণীনগরে আধাঁরে আলো মানবতার সংগঠনের পথচলা শুরুনাগেশ্বরী শিক্ষক কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিতভূঞাপুরে সাংবাদিক জুলিয়া পারভেজের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল

গাজীপুরে ৯ম জাতীয় কাব ক্যাম্পুরীর শুভ উদ্বোধন করেন, রাষ্ট্রপতি।

গাজীপুর থেকে মনির হোসেন জীবন।

বাংলাদেশ স্কাউটস এর উদ্যোগে সোমবার (২০জানুয়ারী) বিকেলে জাতীয় স্কাউট কেন্দ্র, মৌচাক, কালিয়াকৈর, গাজীপুরে ৯ম জাতীয় কাব ক্যাম্পুরীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চীপ স্কাউট জনাব মো: আবদুল হামিদ ক্যাম্পুরীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিকেল ৪টার দিকে ফেসটুন, বেলুন ও পায়রা অবমুক্তকরনের মধ্যে দিয়ে কাব ক্যাম্পুরীর শুভ উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে তিনি তার বক্তবের শুরুতে বাংলাদেশ স্কাউটস আয়োজিত ‘৯ম জাতীয় কাব ক্যাম্পুরীতে অংশগ্রহণকারী দেশ-বিদেশের কাব স্কাউট ও স্কাউটারদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। এছাড়া কাব স্কাউটসরা বন্ধুত্বের সেতুবন্ধন তৈরীর পাশাপাশি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা করেন।

সেই সাথে বিনম্র চিত্তে স্মরণ করেন জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। স্মরণ করেন মাতৃভাষার অধিকার আদায়ের আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধসহ বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যারা জীবন উৎসর্গ করেছেন সেইসব অকুতোভয় বীর শহীদদের এবং তাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নামের সাথে জড়িয়ে আছে বাংলা, বাঙালি ও বাংলাদেশ। তিনি স্বাধীনতার মহান স্থপতি সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী। এ বছর স্বাধীনতার সেই অগ্নি পুরুষের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপিত হতে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে ক্ষনগননা শুরু হয়ে গেছে। আগামী ১৭ মার্চ ২০২০ মঙ্গলবার স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের ঠিক ৮দিন আগে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন এর কার্যক্রম শুরু হবে। চলবে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত। গোটা দেশবাসী এবং প্রবাসী বাংলাদেশীরা গভীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করছে তাদের প্রিয় নেতার জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন এর জন্য। ঠিক এমনি সময়ে ক্যাম্পুরী অনুষ্ঠিত হচ্ছে। যা সকলের নিকট স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিকে সোনার বাংলায় পরিণত করতে চেয়েছিলেন’ বঙ্গবন্ধু। আমাদের তরুণ প্রজন্ম, যারা মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি, বঙ্গবন্ধুকে দেখেনি, তারা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়ে দেশ গড়ার কাজে আত্মনিয়োগ করবে।

তিনি আরো বলেন, রাজনৈতিক স্বাধীনতার পাশাপাশি অর্থনৈতিক মুক্তি ছিল আমাদের স্বাধীনতার লক্ষ্য। জাতির পিতা সে লক্ষ্যকে সামনে রেখে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের অর্থনীতি ও অবকাঠামো গঠনের মাধ্যমে অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রাম শুরু করেছিলেন। কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতার পরিবারের আপনজনদের নিশংস হত্যাকাণ্ড হলে দেশে গণতন্ত্র ও উন্নয়নের অগ্রযাত্রা থমকে দাঁড়ায়। উত্থান ঘটে স্বৈরশাসন ও অগণতান্ত্রিক সরকারের। দেশে আজ মুক্তিযুদ্ধের পতাকাবাহী গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠিত। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজকে পরিপূর্ণতা দানের লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘ভিশন ২০২১, ‘ভিশন ২০৪১’ এবং শতবর্ষ মেয়াদি ব-দ্বীপ পরিকল্পনা ২১০০ গ্রহন করেছেন। জাতিসংঘ ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ২০৩০’ অর্জনসহ ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করা এসব মহাপরিকল্পনার উদ্দেশ্য। উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে ইতিবাচক আধুনিক বিজ্ঞান মনস্ক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে উন্নয়ন যাত্রায় শামিল হতে হবে। স্কাউটিং কার্যক্রম পারে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে আধুনিক, প্রগতিশীল, সৃজনশীল হিসেবে গড়ে তোলতে এবং সমাজকে এগিয়ে নিতে। স্কাউটিংকে দেশসেরা ও মানব কল্যাণে কাজে লাগাতে হবে।

স্কাউটিং এর শিক্ষা ব্যক্তি পরিবার ও সামাজিক জীবনে প্রতিফলিত করা গেলে জাতীয় উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে। জীবনে বড় হতে হলে কঠোর পরিশ্রম আর অনুশীলনের বিকল্প নেই। আমি আশা করি নবম জাতীয় পার্টিতে অংশগ্রহণ কারী স্কাউট নিজেদের উন্নয়নের পাশাপাশি পরোপকারী ও স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলবে। অন্যরা তোমাদেরকে অনুসরণ করে স্কাউটিংয়ে উৎসাহিত হবে। স্কাউট জীবনের সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন প্রেসিডেন্ট স্কাউট অ্যাওয়ার্ড। লেখাপড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষতা লাভের স্বীকৃতি হিসেবে আজ তোমরা প্রেসিডেন্ট স্কাউট অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছ। অ্যাওয়ার্ড অর্জনকারী সকলকে আমি অভিনন্দন জানাচ্ছি আগামী দিনের সুন্দর বাংলাদেশ বিনির্মাণে তোমরা নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাবে এটাই সকলের প্রত্যাশা। আমি তোমাদের সার্বিক কল্যাণ কামনা করি ২০২১ সালে স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে বাংলাদেশ স্কাউট সদস্য সংখ্যা বর্তমানে প্রায় ১৯ লক্ষ থেকে ২১লক্ষে উন্নীত করার উদ্যোগ কে আমি স্বাগত জানাই। ২০২১ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে ৩২ তম স্কাউট জাম্বুরী।

আমি জেনে আরো আনন্দিত যে স্কাউট সদস্য সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধির জন্য বাংলাদেশ বিশ্ব স্কাউট সংস্থার ‘টপ ফাইভ কান্ট্রি অ্যাওয়াডর্’ এবং ‘এপিআর সাসটেনেবল গ্রোথ অ্যাওয়ার্ড’ অর্জন করেছে। এজন্য আমি সকল পর্যায়ে স্কাউট ও স্কাউট নেতৃবৃন্দকে অভিনন্দন জানাই। আগামী দিনে তোমরাই বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবে। তোমরা জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা-দারিদ্র।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো