English|Bangla আজ ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার রাত ১০:৩৭
শিরোনাম
মোংলায় শীতার্ত পরিবারের হাতে কম্বল তুলে দিলেন উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহারঅনলাইন পাবলিক গ্রুপ আমাদের জন্মভূমি- কিশোরগঞ্জ এর দ্বিতীয় ধাপে শীতবস্ত্র বিতরণভালুকা পৌর নির্বাচন: প্রচারণায় ব্যস্ত মমেক ছাত্রলীগ সম্পাদক হাসাননারী ফুটবল লীগে নিজ পরিচয়ে খেলতে চায় রংপুরের পালিচড়ার মেয়েরানবীনগরে বিদ্যুতের অাগুণে পুড়ে চাচা ভাতিজার মৃত্যুবুড়িচংয়ের আনন্দপুরে মানবতার দেয়াল উদ্ভোধন ও শীতবস্ত্র বিতরণবর্ণাঢ্য অায়োজনে কালীগঞ্জে এশিয়ান টিভি’র ৮ম বর্ষপূর্তি উৎযাপন।মহেশপুরে মাদক, বাল্যবিবাহ এবং আত্নহত্যা প্রতিরোধে ওয়ার্কশপ অনুষ্টিত।ঈদগাঁও থানা শুভ উদ্বোধন করেন-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমোহনপুর ইউপির জনসাধারণের সাথে আঃলীগ নেতা জনির সৌজন্যে সাক্ষাত

গাইবান্ধা-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হিসাবে দলীয় নেতাকর্মীদের পছন্দের শীর্ষে এ্যাড.উম্মে কুলসুম স্মৃতি

আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসন ৩০৪ আসনের সাবেক সদস্য ও বাংলাদেশ কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি ৩১-গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ী-সাদুল্যাপুর) উপজেলার সর্বস্তরের দলীয় নেতাকর্মীগণ নৌকার প্রার্থী হিসাবে তাকে দেখতে চান।

দলীয় নেতাকর্মীরা সুখেদুঃখে যাকে কাছে পান তিনি হলেন এ্যাড.উম্মে কুলসুম স্মৃতি। গাইবান্ধা-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হিসাবে দলীয় নেতাকর্মীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছেন এ্যাড.উম্মে কুলসুম স্মৃতি। তিনি ১৯৬৩ সালে ১ জানুয়ারি গাইবান্ধা জেলার নবগঠিত পলাশবাড়ী পৌরসদরের জামালপুর গ্রামে এক সম্ভান্ত মুসলিম পরিবারের জন্মগ্রহন করেন । তার পিতা মরহুম মোকসেদ আলী প্রধান মধু ও মাতা মরহুমা মাহমুদা বেগম প্রধান।

স্বামী মো: মাহবুর রহমান একজন সফল ব্যবসায়ি। তার চাচা মরহুম সাকোয়াত জ্জামান প্রধান (বাবু চেয়ারম্যান) একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও পলাশবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সফল সভাপতি ছিলেন । দাম্পত্য জীবনে তিনি দুই কন্যা সন্তানের জননী তাহার কন্যাদ্বয় বিদেশে পড়াশুনা করছে।

ছাত্রজীবন থেকেই এড.উম্মে কুলসুম স্মৃতি ছাত্রলীগের রাজনীতে সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন ছাত্রজীবন শেষে একজন আইনজীবী হিসাবে ১৯৯৩ সালে ঢাকাবারে যোগদান করেন এবং আওয়ামী রাজনীতি তথা আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে জড়িত হন।

বিগত ২০০০ সালে ঢাকা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে সর্বাধিক ভোটে কার্যকরি পরিষদের ১ নং সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৬-০৭ সালের ঢাকা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে কার্যকরি পরিষদের সাংস্কৃতিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০০৩ সালে বাংলাদেশ কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে যোগদান করেন। পরবর্তীতে সাধারন সদস্য এরপর আইন বিষয়ক সম্পাদক ও পরে ২০১২ সালে কাউন্সিল অধিবেশনে কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত হন।

বর্তমান সময়ে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের গাইবান্ধা জেলা শাখার সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য । আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী হিসাবে জাতীয় সংসদ সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হন। এছাড়াও জাতীয় সংসদের কৃষি মন্ত্রনালয় সম্পকিত স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারিয়ান এসোসিয়েশন (সিপিএ) বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের সদস্য।

২০০১ সালে জাতীয় নির্বাচনের পর বিএনপি-জামাত জোট বিরোধী প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামে সংগঠনের মিছিল ও রাজপথ অবরোধ কর্মসুচীতে তিনি অগ্রনী ভূমিকা এবং সক্রিয় অংশ গ্রহন করেন । তিনি আওয়ামীলীগ সভাপতি জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী ও কৃষকরত্ন শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে তৎসহ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ১/১১ পরবর্তীতে দায়ের করা সকল মামলার বিরুদ্ধে প্যানেল এ্যাডভোকেট হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি এসময় আইনী লড়াইয়ের মাধ্যমে নেতাকর্মীদের জেলহাজত থেকে মুক্ত করেন ও এসব ব্যাপারে সক্রিয় ভুমিকা রাখেন। এছাড়াও ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামালা-মামলায় অলৌকিক ভাবে বেচে যান । কর্মময় জীবনে তিনি ১৯৯৩ সালে তিনি ঢাকা আইনজীবী সমিতির (ঢাকা বারের) সদস্য পদ লাভ করেন । এবং অদ্যাবধি নিয়মিত আইনজীবী হিসাবে আইনপেশায় নিয়োজিত আছেন ।

তিনি ২০০১ সালে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবীর সমিতির (সুপ্রীম কোট বারের) সদস্য পদলাভ করেন । আওয়ামী সরকারের বিভিন্ন সময়ে তিনি এপিপি, এডিশনাল পিপি, পিপি (দূর্নীতি দমন কমিশন) হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। বাগান করা , বৃক্ষরোপন, বইপড়া, ভ্রমন ও খেলাধুলা করা তার সখ। কলেজ জীবনে খেলাধুলায় বিশেষ করে কাবাডি খেলায় তিনি জেলার চ্যাম্পিয়ান ছিলেন।

নিজ জন্মস্থানে দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের কাছে তিনি স্মৃতি আপা হিসাবে সর্বত্র পরিচিত মানুষ। ২০১৯ সালে কৃষকলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন। সংগঠনকে সু-সংগঠিত করার লক্ষে কাজ করছেন। এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি কর্মীবান্ধব নেত্রী হিসাবে এ দুটি উপজেলার সর্বস্তরের দলীয় নেতাকর্মীদের মন জয় করার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছেন।

তাই দলীয় নেতাকর্মীরাসহ স্বাধীনতার চেতনার মানুষগুলো দলমত নির্বিশেষে আসন্ন উপ- নির্বাচনে নৌকা মার্কার প্রার্থী হিসাবে এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতিকে দেখতে চান।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো