1. admin@bsalnewsonline.com : admin :
  2. alexpam3107@gmail.com : Alexkanda :
  3. editor@dailyekattorjournal.com : জাকির আহমেদ : জাকির আহমেদ
  4. zakirahmed0112@gmail.com : Zakir Ahmed : Zakir Ahmed
  5. vroglina@mail.ru : IsaacCliet :
  6. marcia-tedbury18@lostfilmhd720.ru : marciatedbury :
  7. rayhanchowdhury842@gmail.com : Rayhan :
  8. m.r.rony.007@gmail.com : rony : MahamudurRahm Rahman
  9. ki.po.n.io.m@gmail.com : roxanaaronson3 :
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৪:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
চরফ্যাশনে করোনা ভাইরাসের বিস্তার বন্ধে সচেতনতা মূলক প্রচার প্রচারণায় ইয়ুথ পাওয়ার ইন বাংলাদেশ উলিপুরে গুনাইগাছ ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটে পিকআপ ভর্তি পলিথিন জব্দ : আটক-২ ফুলপুরে সাহিত্য পরিষদের দোয়া ও ইফতার নাটোরের বাগাতিপাড়ায় বয়স্ক দম্পত্তিকে কুপিয়ে হত্যা বাঙ্গরায় যুবলীগের উদ‍্যোগে পথচারী ও নিন্মআয়ের মানুষদের মাঝে ইফতার বিতরণ কুড়িগ্রামে ৭বছরের শিশু ধর্ষণ- ধর্ষক গ্রেপ্তার সাদুল্যাপুরের নলডাঙ্গা প্রাইমারী স্কুলের প্রধান শিক্ষক মাসুম বিল্লাহ বরখাস্ত প্রস্তাবিত অর্থনৈতিক অঞ্চল পরিদর্শন করলেন এ্যাড. উম্মে কুলসৃম স্মৃতি এমপি পলাশবাড়ী উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

ক্যান্সার নিয়ন্ত্রণে কেমোথেরাপির চেয়ে ১০ হাজার গুন শক্তিশালী ফলের সন্ধান পাওয়া গেছে।

  • Update Time : রবিবার, ১ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ১০ বার পড়া হয়েছে

ক্যান্সারের চিকিৎসায় কেমোথেরাপি অন্যতম। এই চিকিৎসা চলাকালীন ক্যান্সার রোগীর গায়ের সব লোম উঠে যায়। একই সঙ্গে শরীরও দুর্বল হয়ে যায়। জানেন কি, এমন গাছ আছে, যার ফল কেমোথেরাপির চেয়ে ১০ হাজার গুণ শক্তিশালী? অথচ কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও নেই। ফলটির নাম করোসল (corossol)। করোসল অ্যানোনা মিউরিকাটা গোত্রের ক্যান্সার প্রতিরোধক।

বন্দর খড়িবাড়ীর টুনিরহাট নামক গ্রামে ফলন শুরু হয়েছে এই গাছের। বিভিন্ন দেশ ঘুরে চারা সংগ্রহ করে নিয়ে এসে এক অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা তাঁর বাগানে এই গাছ লাগান। সেই গাছে ফলও ধরেছে। ক্যান্সার রোধে করোসলের উপকারিতা পৃথিবীর বহু দেশেই প্রমাণিত।

এই ফলের অন্য নামগুলি হল, গ্র্যাভিওলা, সোরসপ, গুয়ানাভা ও ব্রাজিলিয়ান পাও পাও। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই ফলের এতটাই গুণ, এই ফল খেলে ক্যান্সাররোগীর কেমোথেরাপির প্রয়োজন হয় না। শরীরও চাঙ্গা থাকে, দুর্বল ভাব আসে না। এখন বিভিন্ন জেলা উপজেলার লোকজন ফল আর পাতা সংগ্রহ করতে আসতে দেখা যাচ্ছে।

মূলত, আমাজন নদীর উপত্যকা- দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলিতে করোসল প্রচুর পরিমাণে জন্মায়। শুধু ফলই নয়, এই গাছের ছাল ও পাতায় লিভার সমস্যা, আর্থরাইটিস ও প্রস্টেটের সমস্যায়ও নিরাময় হয়ে যায়। কীভাবে কাজ করে করোসল? করোসল গাছে রয়েছে অ্যানোনাসিয়াস অ্যাস্টোজেনিন নামে এক ধরনের যৌগ। এই যৌগ ক্যান্সারের কোষের বৃদ্ধি রুখে দেয়, যা কেমোথেরাপি করে।

ফলে ক্যান্সার কোষ আর বাড়তে পারে না। এছাড়া নিয়মিত এই ফল খেতে পারলে, শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকটা বেড়ে যায়। রক্তকে শোধিত করতেও এই ফলের গুণ অনস্বীকার্য।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category