English|Bangla আজ ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার বিকাল ৪:২৪
শিরোনাম
রংপুর জেলা আ’লীগ নেতা ওয়াজেদুল ইসলামের মাতা আর নেইফুলপুর শুভসংঘের নয়া কমিটির যাত্রা শুরু, আশরাফ সভাপতি, পান্না সাধারণ সম্পাদকনরসিংদীতে ঢিলেঢালা লকডাউনচিরিরবন্দরে নির্দেশ অমান্য করে দোকান খোলায় ১০ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানাফেসবুক গ্রুপ প্রিয় খানসামা’র উদ্যোগে গরীব পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম শুরুপহেলা বৈশাখ উপলক্ষে সাপাহারে রোগীদের মাঝে উন্নত খাবার পরিবেশনকরোনা কি পৃথিবীতে দুর্ভিক্ষের হাতছানি দিচ্ছে?ইউএনও-এসিল্যান্ডের নজরদারী- নান্দাইলে কঠোরভাবে লকডাউন পালনমুরাদনগরে খেলার মাঠকে বাঁচিয়ে রাখতে মানবিক আবেদন জানিয়ে মানববন্ধনলক্ষ্মীপুরে মেশিনে কাঁটা পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

কুলিয়ারচরে মামুনুল হক সমর্থকদের হামলার ঘটনায় ১হাজার ৬৬ জনের নামে দু’টি মামলা গ্রেফতার-৫

মুহাম্মদ কাইসার হামিদ, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ

সোনারগাঁও রয়েল রিসোর্ট থেকে নারীসহ মামুনুল হক জনতার হাতে আটকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে মামুনুল হকের সমর্থকদের বিক্ষোভ, হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় ১হাজার ৬৬ জনের নামে পৃথক দু’টি মামলা হয়েছে।

রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ত্রাস বিরোধী আইন ২০০৯ ও পুলিশ এসর্ডসহ বিভিন্ন ধারায় কুলিয়ারচর থানার কর্তব্যরত এস.আই সাদ্দাম মোল্লা বাদি হয়ে ৩৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ৫’শ জনকে আসামি করে একটি মামলা (মামলা নং-২) দায়ের করে।
অপরদিকে রাষ্ট্রীয় সম্পদ ভাঙচুরের অপরাধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি বাসভবনের (কোয়ার্টারের) নিরাপত্তাকর্মী মো. জিয়াউল ইসলাম বাদি হয়ে ৩৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ৫’শ জনকে আসামি করে ওই দিন দুপুরে অপর একটি মামলা (মামলা নং- ৩) দায়ের করে। ওইদিন মামলার এজাহার নামীয় ৫ জনকে গ্রেফতার করে কিশোরগঞ্জ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

জানা যায়, মামুনুল হককে লাঞ্চিত করার খবর ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শনিবার (৩এপ্রিল) দিবাগত রাত সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার উছমানপুর ইউনিয়নের নাজিরদীঘি, পৌর শহরের বড়খারচর ও পূর্ব গাইলকাটাসহ আশপাশ এলাকা থেকে মামুনুল হক সমর্থকরা লাঠি ও দেশীয় অস্ত্রাদিসহ পৃথক পৃথক ভাবে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে কুলিয়ারচর বাজারে প্রবেশ করে। পরে মিছিলটি কুলিয়ারচর বাজারের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কুলিয়ারচর থানার সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশের বিরুদ্ধে শ্লোগান দিয়ে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়ে। পরে পুলিশও একপর্যায়ে তাদের দাওয়া করে। পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের দাওয়া-পাল্টা দাওয়ায় পরিস্থিতি অস্বাভাবিক হতে থাকে। এভাবে রাত ১০ টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত পুলিশের সাথে দাওয়া-পাল্টা দাওয়া চলতে থাকে।

একপর্যায়ে বিক্ষোভকারীরা পিছু হটে উপজেলা পরিষদ চত্বরে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি বাসভবনে (কোয়াটারে) ইটপাটকেল ছুঁড়ে ভাঙচুর করে এবং উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসের সামনে মহারাজ ত্রৈলোক্যনাথ চক্রবর্তীর পাঠাগারের জানালা ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাইনবোর্ড ভাঙচুর করে তারা। দাওয়া-পাল্টা দাওয়ার সময় ইটপাটকেলের আঘাতে পুলিশ ও সাংবাদিকসহ অন্তত ১০ আহত হয়। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। পরে কুলিয়ারচর ইমাম ওলামা পরিষদের সভাপতি ইলিয়াস মাহমুদ কাসেমী রাসেলের সহায়তায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

এ ঘটনার খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) তাহিয়াত আহমেদ চৌধুরী ও ভৈরব সার্কেলের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার রেজুয়ান দীপু অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে কুলিয়ারচর থানায় অবস্থান করে দিক নির্দেশনা দেন।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবাইয়াৎ ফেরদৌসী সাংবাদিকদের বলেন, হামলা ও ভাংচুরের বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে এবং এ ঘটনায় কুলিয়ারচর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে ।

এ ব্যাপারে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ.কে.এম সুলতান মাহমুদ বলেন, মামুনুল হক সমর্থকেরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়ে। রাষ্ট্রীয় সম্পদ ভাংচুর করে। এতে ৫/৬ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়। তবে মিছিলে কোন মাদ্রাসার ছাত্র কিংবা হেফাজত ইসলামের লোক ছিলো না।

এ ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ দেখে চিহ্নিত করে দু’টি মামলায় ৩৩ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে এবং এদের মধ্যে ৫ জনকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। ভিডিও ফুটেজ দেখে অন্যান্যদের চিহ্নত করে ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো