English|Bangla আজ ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার রাত ১১:০৬
শিরোনাম
কুড়িগ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে মাছ ও গাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা?গোবিন্দগঞ্জে অটোভ্যান চালকের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধাররাণীনগরে সড়ক দূর্ঘটনায় সাইকেল আরোহী নিহতগোবিন্দগঞ্জে অবৈধভাবে নদী থেকে বালু উত্তোলনমাদারীপুর জেলার গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জদের সাথে আলোচনা সভাবাংলাদেশ প্রার্থমিক শিক্ষক কল্যাণ সমিতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদানরায়পুরে ৯৩ গ্রাম পুলিশ পেলেন শীতবস্রমোহনগঞ্জে অসহায় শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণনান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উদ্যোগে স্বাস্থ্য শিক্ষা প্রদান ও ঔষধ বিতরণশীতার্তদের মাঝে তিনশত কম্বল বিতরন করেছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি কিশোরগঞ্জ ইউনিট

কাহারোল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উন্নয়ন ও চিকিৎসা সেবার মান বৃদ্ধিঃ

পি কে রায় চিরিরবন্দর (দিনাজপুর ) প্রতিনিধি :

দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ শফিউল আজম অত্র উপজেলায় যোগদানের পর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এর চিকিৎসা নেওয়ার জন্য আসা রোগীদের সেবার মান ফিরিয়ে পেয়েছে।

দিনাজপুরের ১৩ টি উপজেলার মধ্যে অবহেলিত উপজেলা ছিল কাহারোল উপজেলা।

বর্তমানে আর এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স অবহেলিত নয়।এখন উন্নত উপজেলা হিসাবে দিন দিন রূপান্তরিত হচ্ছে। উপজেলার সাধারণ রোগীদের আগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তেমন কোন স্বাস্থ্য সেবা না পেয়ে বাড়ি ফিরে অন্য চিকিৎসা কেন্দ্রে যেতে হয়েছে। এ ধরনের অভিযোগ অনেক রোগীদের কাছ থেকে শোনা যেত। এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিও ছিল অবহেলিত।

এরই মাঝে গত ২০১৮ খ্রীঃ
জুলাই মাসে টাঙ্গাইল জেলা থেকে বদলী জনিত কারণে কাহারোল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এর প্রধান হিসেবে যোগদান করেন ডাঃ মোহাম্মদ শফিউল আজম।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ শফিউল আজম এই অল্প সময়ের মধ্যে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সহ ডাক্তার ও কর্মচারীদের থাকার বাসভবনগুলো জরাজীর্ণ ও বসবাস অনুপোযোগী থেকে করেছেন উন্নত ও বসবাসের উপযোগী। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হওয়ায় দূর-দূরান্তের ডাক্তাররা এখানে যোগদান করার পর থেকেই তদবির করে অন্যত্র বদলী নিয়ে চলে যেতেন। এর ফলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বহিঃবিভাগে রোগী ও ভর্তি হওয়া রোগীদের পড়তে হত অনেক ভোগান্তিতে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর এ্যাম্বুলেন্সটিও বিকল অবস্থায় দীর্ঘদিন পড়েছিল। কিন্তু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ শফিউল আজম যোগদান করার পর থেকেই তিনি সরকারের উচ্চ মহলের সাথে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বিষয়ে যোগাযোগ অব্যাহত রাখায় বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এ একটি নতুন এ্যাম্বুলেন্স এর ব্যবস্থা করেছেন, ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উন্নিতকরণ ও নতুন ভবন নির্মাণ, বসবাস অনুপোযোগী বাস ভবন সংস্কার, ডাক্তারদের আবাসিক ভবন নির্মাণ, গর্ভবতী নারীদের নরমাল ডেলিভারিকরণ, বর্তমানে নতুন ৭ জন ডাক্তারের যোগদান ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এর সামনের মাঠ, সার্বক্ষণিক স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা, ভেষজ বাগান সহ বিভিন্ন ধরনের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করেছেন তিনি।

এই কর্মকর্তা প্রশাসনিক, দাপ্তরিক কাজ ছাড়াও প্রতিনিয়ত রোগী দেখছেন এবং রোগীদের খোঁজ-খবর নিয়ে নিরলস ভাবে সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। এরফলে ব্যস্ত সময় পার করছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান কর্মকর্তা।

১২ ফেব্রুয়ারী ২০২০খ্রীঃ সকাল ১১ ঘটিকার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে ডাঃ মোহাম্মদ সফিউল আজমের সাফল্যের বাস্তব চিত্র।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ শফিউল আজম-এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এর এসব উন্নয়নসহ সমস্যাগুলো যতটুকু সম্ভব তা সমাধান করার চেষ্টা করছি এবং আমাদের মাননীয় এমপি মহোদয় জনাব মনোরঞ্জন শীল গোপাল ও স্বাস্থ্য বিভাগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ এসব বিষয়ে আমাকে সার্বক্ষণিক সার্বিক সহযোগিতা করায় এসব কাজ বাস্তবায়ণ করা সম্ভব হয়েছে বলে তিনি মনে করেন। তাই উপজেলার সচেতন মহল ও উপজেলাবাসী মনে করছেন ডাক্তার মোহাম্মদ শফিউল আজমের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে আমরা পেয়েছি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উন্নয়ন ও ভাল চিকিৎসা সেবার মান।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো