English|Bangla আজ ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার রাত ১:৪৭
শিরোনাম
ময়মনসিংহ রেঞ্জে পুলিশের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন করেন অ্যাডিশনাল আইজিমাদারগঞ্জ শহর শাখার ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের কর্মী সভা অনুষ্ঠিতবান্দরবানে সেনা রিজিয়নের উদ্যােগে গরীব-দুঃস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণজনগনের ভালবাসা নিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার আদেশ পালন করে যাব…সাজ্জাদুল হাসানশীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করলেন ময়মনসিংহের ডিআরওকারাগারের ভেতরে এক নারীসহ তিনজন সাক্ষাতের ঘটনায়: জেল সুপার ও জেলার প্রত্যাহারকৃষকের ঐতিহ্যবাহী কৃষিজ সরল যন্ত্র কুস্শি এখন বিলুপ্তির পথেমহেশপুর ব্যাটালিয়ন (৫৮বিজিবি) কর্তৃক মাদকদ্রব্য ধ্বংসকরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত।শ্রীমঙ্গলে ১ম দফায় ঘরসহ জমি পেলেন ১শত পরিবারবন্য হাতির আক্রমণে বান্দরবানে ২ জনের মৃত্যু, আহত ১

কালারমার ছড়ায় প্রচলিত আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে জমি জবর দখলের চেষ্টা

বিশেষ প্রতিবেদকঃ

কক্সবাজারের মহেশখালীতে কালারমার ছড়া ইউনিয়নের নোয়াপাড়ায় মোঃ তবারকের ভোগদখলীয় জায়গা প্রচলিত আইনকে তোয়াক্কা না করে বেদখল করার চেষ্টা করছে স্থানীয় শীর্ষ সন্ত্রাসী ও দখলবাজ, ভূমিদস্যু সেলিম বাদশা (কানা বাদশা) ও তার ভাড়াটে লোকজন।

সূত্রমতে মোঃ তবারক আজ থেকে বিগত ১৫বছর আগে ২০০৫ সালের ২১ই সেপ্টেম্বর মাসে ১৮২২ নাম্বার, ৫ই ডিসেম্বর ২৪৫৯ নাম্বার, ২১ই ডিসেম্বর ২২০৮ নাম্বার কবলা ও ২০০৮ সালের ২৫ই সেপ্টেম্বর ১৬৬১ নাম্বার, ১৫ই অক্টোবর ১৬৯৫ নাম্বার, এবং ২০১০ সালের ২৫ই আগষ্ট ১৬৩৯ নাম্বার কবলা দিয়ে মোঃ তবারক স্বত্বাধিকারী মোট ৮৪ কড়া জায়গা ক্রয় করে। কিন্তু জায়গাটি নেওয়ার পর থেকে স্থানীয় শীর্ষ সন্ত্রাসী সেলিম বাদশা প্রকাশ কানা বাদশা নিজে এবং তার সাঙ্গপাঙ্গদের দিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন হয়রানি ও হুমকি ধামকি দিয়ে চাঁদা দাবি করে এবং চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তার খরিদকৃত জায়গাটি বেদখল করার চেষ্টা করে।

জানা যায় গেলো ১৫ই ফেব্রুয়ারি ১৯ তারিখে সন্ত্রাসী সেলিম বাদশা প্রকাশ কানা বাদশা ও তার ভাড়াটে লোকজন দিয়ে অন্যায়ভাবে নিরীহ তাবারক’কে তপশীলভোক্ত জমির দখল ছেড়ে দেওয়ার জন্য হুমকি দেয় এবং দখল ছেড়ে না দিলে ৫লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। এরপর তবারক আইনের আশ্রয় নিয়ে শফিউল্লাহ প্রকাশ শামসু, মোক্তার প্রকাশ সোনা মিয়া, ও সেলিম বাদশা প্রকাশ কানা বাদশাসহ ৩জনকে আসমী করে কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বারবার ফৌজদারি আইনে মামলা করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে। যার মামলা নং ২৬৬/২০১৯ইং, যাতে ফৌজদারি মামলা ১৪৪ ধারার বিধান মোতাবেক দ্বিতীয় পক্ষকে কোনভাবে তপশীলোক্ত জায়গাতে প্রবেশ ও জবরদখল, এবং শান্তিপূর্ণ জায়গায় বাধা বিঘ্ন সৃষ্টি না করার জন্য আদেশ করা হয় কিন্তু সন্ত্রাসীরা এই আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে বারংবার হায়রনী ও হুমকি দিতে থাকে এবং সন্ত্রাসীরা এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয় কিছু পত্রিকায় টাকার বিমিময়ে সংবাদ ছাপায়, যাতে তবারক এবং তার পরিবারে অনেক মান ক্ষুন্ন হয়েছে বলে জানান। পরবর্তী সময়ে তবারক প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদও জানান।

সুত্রমতে এর আগেও শীর্ষ এই সন্ত্রাসীর অনেকগুলো মামলা রয়েছে যার মামলা নং জি আর ৫৫, জি আর ৫৬, জি আর ২৮২/১১, এফ আই আর নং৩৮০/৪৯৮, এফ আই আর নং ১৪/৭৯, এফ আই আর নং ১৯/৮৪ ও এফ আই আর নং ৯ সহ আরো অনেক। ভুক্তভোগী জানান এর আগেও তাদের উপর হামলা ও বিভিন্ন হয়রানী করে ১লক্ষ টাকা চাঁদা নেয় সন্ত্রাসী সেলিম বাদশা ।

বিষয়টি নিয়ে তবারকের কাছে জানতে চাইলে তিনি আইনের প্রতি সম্মান দেখিয়ে স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের কাছে বিষয়টি দৃষ্টি আকর্ষন করেন।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো