English|Bangla আজ ২১শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার রাত ৯:১৯
শিরোনাম
বান্দরবানে জীপগাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পরে নিহত ৩ আহত ৫ জনমহেশপুর অফিসার্স ফোরামের উদ্যোগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন।ভালুকায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু; স্বামী গ্রেফতারসাপাহারে মাল্টা চাষে ব্যাপক সম্ভাবনা: বাজারজাত নিয়ে বিপাকে চাষীরা!কালীগঞ্জে প্রেমে ব্যর্থ হয়ে যুবকের আত্মহত্যামোংলায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে কোস্ট গার্ডনান্দাইলে এমপি তুহিনের পিতার রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিলমুদি দোকান করে সংসার চলছে কিন্ডারগার্টেন শিক্ষিকারমুরাদনগরের বাঙ্গরার পূৃর্বধৈইরে নবজাগরন সংগঠনের উদ্যাগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরনমেরকুটা নাইট শট সার্কেল টিভি কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত।

আজ ঢাকায় দুই সিটির ভোটগ্রহণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন। শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এরইমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। কেন্দ্রে কেন্দ্রেও পৌঁছে গেছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)-সহ নির্বাচনি সামগ্রী। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে ইসি সবার সহযোগিতা চেয়েছে। একইসঙ্গে ভোটারদের নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাদের নির্বিঘ্নে ভোটাধিকার প্রয়োগেরও অনুরোধ করেছে ইসি।

নির্বাচনের সর্বশেষ প্রস্তুতির বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেন, নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে প্রস্তুতি শেষ। কেন্দ্রে কেন্দ্রে নির্বাচনি সামগ্রীও পৌঁছে গেছে। প্রিজাইডিং অফিসারসহ সবাই যার যার দায়িত্ব বুঝে নিয়েছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। নির্বাচনের বিষয়ে কোনো ধরনের আশঙ্কার কিছু নেই। ভোটাররা অবাধ ও নির্বিঘ্নে নির্বাচনে অংশ নেবেন। তাদের কোনো অসুবিধা হবে না। নির্বাচনে উন্নত পরিবেশ বিরাজ করছে বলেও তিনি দাবি করেন।

জানা গেছে, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ১৩ জন মেয়র প্রার্থী চূড়ান্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, বিএনপির ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন। আরো রয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, গণফ্রন্টের আব্দুস সামাদ সুজন, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আকতার উজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লা, ইসলামি আন্দোলনের মো. আবদুর রহমান ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) বাহারানে সুলতান বাহার।
এদিকে, ঢাকা উত্তর সিটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. আতিকুল ইসলামের সঙ্গে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন বিএনপির তাবিথ আউয়াল। এছাড়া, এ সিটিতে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন—কমিউনিস্ট পার্টির ডা. আহাম্মদ সাজেদুল, এনপিপির মো. আনিসুর রহমান দেওয়ান, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল (পিডিপি)-এর শাহীন খান ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের শেখ মো. ফজলে বারী মাসউদ।

ঢাকা উত্তর সিটিতে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে ৪৭০ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করলেও চূড়ান্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন ৩৩৪ জন। বাকি ১৩৬ জনের অনেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। বর্তমানে মেয়র পদে ৬ জন, ৫৪টি সাধারণ ওয়ার্ডের বিপরীতে ২৫১ জন কাউন্সিলর ও ১৮টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৭৭ জন নারী কাউন্সিলর প্রার্থী ভোটের মাঠে রয়েছেন।

এদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ৭ জন মেয়র পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা সবাই চূড়ান্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন। এই সিটির ৭৫টি ওয়ার্ডে ৩২৬ জন ও সংরক্ষিত ২৫টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ভোটের মাঠে লড়াই করছেন ৮২ জন প্রার্থী।

জানা গেছে, দুই সিটিতে মোট ভোটার ৫৪ লাখ ৬৩ হাজার ৪৬৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ২৮ লাখ ৪৩ হাজার ৮ জন ও নারী ভোটার ২৬ লাখ ২০ হাজার ৪৫৯ জন। সিটি করপোরেশনের হিসেবে ঢাকা উত্তর সিটিতে মোট ভোটার রয়েছে ৩০ লাখ ১০ হাজার ২৭৩ জন, যার মধ্যে পুরুষ ১৫ লাখ ৪৯ হাজার ৫৬৭ জন ও নারী ১৪ লাখ ৬০ হাজার ৭০৬ জন। অন্যদিকে দক্ষিণ সিটিতে ভোটার সংখ্যা ২৪ লাখ ৫৩ হাজার ১৯৪ জন, যার মধ্যে পুরুষ ১২ লাখ ৯৩ হাজার ৪৪১ জন ও নারী ১১ লাখ ৫৯ হাজার ৭৫৩ জন।

এদিকে ভোটের পাহারায় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মাঠে নেমেছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। ঢাকা উত্তর সিটিতে ২৭ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাবের ৫৪টি টিম, পুলিশ ও এপিবিএনের সমন্বয়ে ৫৪টি মোবাইল ফোর্স, ১৮টি স্ট্রাইকিং ও ২৭টি রিজার্ভ স্ট্রাইকিং ফোর্স মাঠে নেমেছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো